বাউফলে দুর্বিষহ জীবনযাপন করছে ইফতেদায়ী ও কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকরা

বাউফলে দুর্বিষহ জীবনযাপন করছে ইফতেদায়ী ও কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকরা
ছবিঃ সংগৃহীত

মো.ফোরকান,বাউফল,পটুয়াখালী।। ০৫ আগস্ট, বৃহস্পতিবার।।মহামারি করোনার কারনে দীর্ঘদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় দুর্বিষহ জীবনযাপন করেছে পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার বে-সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সতন্ত্র ইফতেদায়ি মাদরাসা ও কিন্ডারগার্টেন স্কুলের ৩৬৫জন শিক্ষক/শিক্ষিকা। গত বছর থেকে উপজেলার সতন্ত্র ইফতেদায়ি মাদরাসা ও কিন্ডারগার্টেন ৭৫টি প্রতিষ্ঠানের অসচ্ছল,স্বল্প আয়ের শিক্ষক/শিক্ষিকারা বেকার হয়ে পড়েছেন। সরকার করোনায় বিভিন্ন খাতে প্রনোদনার ব্যবস্থা করলেও ইফতেদায়ি ও কিন্ডারগার্টেন শিক্ষক/শিক্ষিকাদের জন্য বিশেষ কোনো সহায়তার ব্যবস্থা না করায় পরিবার পরিজন নিয়ে চরম দুর্ভোগে আছেন তারা।

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকার লকডাউন ও সাধারণ ছুটি ঘোষনা করার পাশাপাশি দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষনা করেন। কিন্তু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও সরকারি ও বে-সরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও কর্মচারিরা যথারীতি বেতন-ভাতা পাচ্ছেন ।
বেগম সামসুরন্নাহার একাডেমি বর্ণমালা কিন্ডারগার্টেন প্রধান শিক্ষক নাজমুল হোসেন বলেন,উপজেলায় প্রাথমিক পর্যায়ের ১১ টি বে-সকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কিন্ডারগার্টেন স্কুলের ৬০জন শিক্ষক/শিক্ষিকাদের জন্য সরকারি বা বে-সরকারি ভাবে কোনো সাহায্য সহায়তা দেওয়া হয়নি। গত বছর থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা না থাকায় শিক্ষক/শিক্ষিকাদের একমাত্র উপার্জনের পথটিও বন্ধ থাকায় তারা দুর্বিষহ জীবনযাপন করেছে। তারা পরিবার পরিজন নিয়ে অনেক কষ্টের মধ্যে আছেন। এমনকি অভিভাবকরা করোনার সময় তাদের ছেলে-মেয়েদেরকে প্রাইভেট পড়ানো পর্যন্ত বন্ধ করে দিয়েছে। এখন তারা না পারছেন অন্য পেশার কাজ করতে। অন্যদিকে ঘর মালিকেরা ঘর ভাড়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করে আসছে।
বাউফল উপজেলা ইফতেদায়ি মাদরাসার সভাপতি ও কালাইয়া আফাজিয়া সতন্ত্র ইফতেদায়ি মাদরাসার প্রধান মাও: মো. মোফাজ্জেল হোসেন বলেন,করোনায় প্রায় দেড় বছর হয় উপজেলায় তালিকাভূক্ত ৬৪টি বে-সরকারি সতন্ত্র ইফতেদায়ি মাদরাসা বন্ধ থাকায় স্বল্প আয়ের ৩০৫জন শিক্ষক/শিক্ষিকারা অনেক কষ্টের মধ্যে দিয়ে জীবনযাপন করছে। তাদের জন্য এখন পর্যন্ত সরকারি পর্যায় কোন সাহায্য-সহযোগিতা করা হয়নি।
বে-সকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সতন্ত্র ইফতেদায়ী মাদরাসা ও কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষক/শিক্ষিকারা করোনাকালীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকা পর্যন্ত বিশেষ সহায়তার করার জন্য সরকারের প্রতি জোড় দাবী জানান। 
এবিষয় বাউফল উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকির হোসেন বলেন,সরকারি ভাবে এসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক/শিক্ষিকাদের জন্য সহায়তার কোনো নির্দেশনা পাওয়া যায়নি। নির্দেশনা পেলে তাদেরকে সহায়তা করা হবে।