বাউফলে ব্রিজের উপর সাঁকো,ভোগান্তিতে  এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীরা

বাউফলে ব্রিজের উপর সাঁকো,ভোগান্তিতে  এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীরা
ছবিঃ সংগৃহীত

মো.ফোরকান,বাউফল,পটুয়াখালী।। ১১ আগস্ট,বুধবার।।পটুয়াখালী বাউফলের কালিশুরি ইউনিয়নর ছিটকা গ্রামে একটি ব্রিজ নয় যেন মরণ ফাঁদ। ব্রিজটির উপর সুপারি গাছের সাঁকো দিয়ে জনসাধারনের পারাপার করতে হচ্ছে। ব্রিজটি ছিটকা মহসিন মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও পশ্চিম ছিটকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পূর্ব পার্শে অবস্তিত। দীর্ঘ দিন ধরেই স্লাব ব্রিজটি জনসাধারণের চলাচলে অনোপোযোগি এবং  ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে রয়েছে। 

স্থানীয়রা জানান, ছিটকা মহসিন মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও পশ্চিম ছিটকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় দুটিতে প্রায় ৭শ শিক্ষার্থী রয়েছে। ওই বিদ্যালয় দুটিতে শিক্ষথীদের যাতায়াত করতে স্লাব ব্রিজটি ব্যবহার করতে হয়। তাছাড়া কয়েক গ্রামের শতশত মানুষ কালিশুরি বাজারে ও উপজেলা শহরে যাতায়াতের একমাত্র ব্রিজ এটি,ওই ব্রিজটি দীর্ঘ দিন সংস্কার না হওয়ায় পারাপারে ভোগান্তি হচ্ছে এলাকাবাসির।

স্থানীয় বাসিন্দা মো. সোহাগ হাসান ও শামিম সরদার বলেন,' দীর্ঘদিন ধরেই স্লাব ব্রিজটি এবং পাশের রাস্তাটি ছাত্র/ছাত্রী ও জনসাধারণের চলাচলের জন্য বেহাল অবস্থায় পড়ে আছে। কর্তৃপক্ষকে একধিকবার বলা হলেও কেউই সারা দেয়নি। প্রতিদিন শিক্ষার্থীরা ও সাধারণ মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ওই স্লাব ব্রিজ দিয়ে পারাপার হচ্ছে।

তারা আরো বলেন, এ বিষয় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মোতালেব হাওলাদারের সাথে কথা বলা হয়েছে। তিনি আমাদের আশ্বস্ত করলেও এখন পর্যন্ত কোন সুফল পাওয়া যায়নি। 
উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানায়,স্লাব ব্রিজটি অনেক দিন বেহাল অবস্থায় পড়ে থাকায় আপাতত উপজেলা পরিষদের মাধ্যম ২ লক্ষ ৬৪ হাজার টাকা ব্যয়ে খুব শিঘ্রই ব্রিজটি মেরামতের জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে।