বান্ধবীর জীবন বাাঁচাতে বন্ধুর প্রানহানী: বান্ধবীও কাটা পড়লেন ট্রেনে

বান্ধবীর জীবন বাাঁচাতে বন্ধুর প্রানহানী: বান্ধবীও কাটা পড়লেন ট্রেনে
ছবিঃ সংগৃহীত
কুষ্টিয়ার মিরপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই স্কুল শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে। রবিবার (৪ সেপ্টেম্বর) মিরপুর রেলগেট সংলগ্ন এলাকায় চিলাহাটি থেকে খুলনাগামী আন্তঃনগর রুপসা এক্সপ্রেস ট্রেনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলো কুষ্টিয়ার মিরপুর পৌরসভার নওপাড়া গ্রামের আজিম আলীর ছেলে নাঈম ইসলাম (১৫) ও একই উপজেলার চিথলিয়া ইউনিয়নের পাহাড়পুর গ্রামের রবিউল শাহর মেয়ে রিতু খাতুন (১৪)। নিহত নাঈম ইসলাম মিরপুর বডার গার্ড পাবলিক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র এবং রিতু মিরপুর নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন।
ঘটনার বর্ণনা দিয়ে স্থানীয় ব্রাইট কোচিং সেন্টারের পরিচালক আব্দুর রাজ্জাক রাজু বলেন, রেল ব্রিজের ওপর দিয়ে কোচিং সেন্টারের দিকে হেঁটে আসছিলো তিন বন্ধু নাঈম, সিয়াম ও রিপা। তখন ট্রেন এলে সিয়াম রেল ব্রিজের নিচে অবস্থান নেয়। নাঈমও পার হয়ে যায় রেল ব্রিজ। কিন্তু পায়ে বোরকা আটকে পড়ে যায় রিপা। সে সময় নিজের জীবন বিপন্ন করে রিপাকে বাঁচাতে চলন্ত ট্রেনের দিকে এগিয়ে যায় নাঈম। এ সময় দু'জনেই ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণ হারায়।
ব্রাইট কোচিং সেন্টারের পরিচালক আরও বলেন, প্রায় চার বছর ধরে এরা আমার কোচিং সেন্টারের শিক্ষার্থী ছিল। আজ বিকালে রেলব্রিজ পার হয়ে আসার সময় মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।
তিনি আরও বলেন, রবিবার এশার নামাজ পরে নাঈমের জানাজা শেষে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। অপরদিকে, রাত ৯টার দিকে জানাজা শেষে রিতুর দাফন সম্পন্ন হয়।
কুষ্টিয়ার মিরপুর রেলওয়ে স্টেশনের কর্তব্যরত মো. মোস্তফা কবির বলেন, চিলাহাটি থেকে খুলনাগামী আন্তঃনগর রূপসা এক্সপ্রেস ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে।
পোড়াদহ রেলওয়ে থানার ওসি মনজের আলী বলেন, ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই দুই জন নিহত হয়েছে।