মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে কক্সবাজার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা সন্তানের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে কক্সবাজার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা সন্তানের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ
ছবি: সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন,  স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার, ১৬ জুন।। কক্সবাজার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর, কক্সবাজার পৌরসভার প্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের আমৃত্যু সভাপতি, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বীর মুক্তিযোদ্ধা জননেতা এ.কে.এম মোজাম্মেল হকের কনিষ্ঠ সন্তান কায়সারুল হক জুয়েল তার নিজ কার্যালয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সংরক্ষিত একটি চেয়ারের ব্যবস্থা করেছেন। তার এই উদ্যোগ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ায় ইতোমধ্যে স্থানীয় লোকজনের পাশাপাশি সমাজের বিশিষ্টজনরা তাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। 

১৬ জুন বৃহস্পতি বার দুপুরে কক্সবাজার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েলের কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, তার চেয়ারের পাশাপাশি লাল রঙের একটি চেয়ার রয়েছে। আর ওই চেয়ারটি সংরক্ষিত রয়েছে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য।
জানা গেছে, কক্সবাজার জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক   কায়সারুল হক জুয়েল উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে সদর উপজেলা পরিষদকে একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছেন। তার বিভিন্ন পদক্ষেপের ফলে নানা শ্রেণিপেশার সেবাপ্রার্থীর সেবাপ্রাপ্তি নিশ্চিত হয়েছে। সম্প্রতি তার কক্ষে, তার চেয়ারের পাশেই জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্যে একটি সংরক্ষিত আসন রেখেছেন।
কক্সবাজার সদর 
উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক এক নেতা বলেন, বর্তমান কক্সবাজার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল  তার কার্যালয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্যে একটি সংরক্ষিত আসনের ব্যবস্থা রেখে আমাদেরকে সম্মানিত করেছেন। তাই সকল মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে তাকে অভিনন্দন জানাই।
অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক পেইজে লিখেন, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কায়সারুল হক জুয়েল তার অফিস কক্ষে জাতির সূর্যসন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য একটি আসন সংরক্ষণ করেছেন। 'প্রয়াস সামান্য কিন্তু গুরুত্ব অপরিসীম'। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি এই শ্রদ্ধা প্রদর্শন মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণ ও চেতনা বিকাশে সহায়ক হবে বলে সবাই বিশ্বাস করেন। তার এই শুভ উদ্যোগের জন্য সকলেই অশেষ ধন্যবাদ জানান।
কক্সবাজার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল  বলেন, আমিও একজন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান। মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান।
প্রত্যেক উপজেলায় প্রতিটি দপ্তরে এমনিভাবে একটি চেয়ার সংরক্ষিত রাখা হলে মানুষের মাঝে দেশাত্মবোধ জাগবে পাশাপাশি মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান বৃদ্ধি পাবে।