মানিকগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজকে হত্যাচেষ্টায় অভিযুক্ত প্রিতম গ্রেফতার

নজরুল ইসলাম।। মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি।। মানিকগঞ্জ জেলার মানিকগঞ্জ পৌরসভার পূর্ব দাশড়া এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল আজিজকে হত্যাচেষ্টার একমাত্র আসামী প্রিতম (২৫)-কে ঘিওর থানাধীন কুন্দরিয়া এলাকা এলাকা হতে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪।

গ্রেফতার বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার লুৎফর রহমান জানান, আজ ০৬ সেপ্টেম্বর ভোর ০৫.৩০ মিনিটে মানিকগঞ্জ জেলার ঘিওর থানাধীন কুন্দরিয়া এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে মানিকগঞ্জ সদর থানার চাঞ্চল্যকর বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল আজিজ (৭০)-কে হত্যাচেষ্টার এজাহার নামীয় একমাত্র আসামী প্রিতম (২৫)-কে গ্রেফতার করে র‍্যাব।

তিনি আরো জানায়, প্রিতম মানিকগঞ্জ সরকারি দেবেন্দ্র কলেজের ডিগ্রি ২য় বর্ষের ছাত্র। সে বাবা,মায়ের অবাধ্য সন্তান এবং উশৃংখল প্রকৃতির ব্যক্তি। মুক্তিযোদ্ধা  মোঃ আব্দুল আজিজকে ০৪ সেপ্টেম্বর সকাল ০৮:২০ মিনিটে  মানিকগঞ্জ থানাধীন গঙ্গাধরপট্টি এলাকার  জনৈক জীবন মিস্ত্রির বাড়ীর সামনে দিয়ে পায়ে হেঁটে যাওয়ার সময় দ্রুতগতিতে মোটরসাইকেল চালিয়ে পেছনের দিক থেকে ধাক্কা দেয়, ফলে আব্দুল আজিজ মাটিতে পড়ে যায়।  মাটি থেকে উঠে প্রিতমকে পেছন দিক থেকে ধাক্কা দেওয়ার কারণ জিজ্ঞেস করলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে যায় এবং মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ ও হুমকি-ধামকি প্রদর্শন করতে থাকে।

একপর্যায়ে প্রিতম প্রচন্ড ক্ষিপ্ত হয়ে আব্দুল আজিজকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি মারতে থাকে। ভিকটিম আত্মরক্ষার জন্য আসামীকে প্রতিহত করার চেষ্টা করলে আসামী আরও ক্ষিপ্ত হয়ে যায় এবং ভিকটিমকে হত্যা করার উদ্দেশ্যে পাশে থাকা লোহার রড দিয়ে সজোরে ভিকটিমের মাথার বামপাশে আঘাত করলে ভিকটিমের মাথা ফেটে রক্ত বের হতে থাকে। অতঃপর আসামী পুনরায় উক্ত লোহার রড দিয়ে ভিকটিমের মাথায় আঘাত করার চেষ্টা করলে উক্ত আঘাত ভিকটিমের বাম চোখে লেগে চোখ গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়। মাথা ও চোখে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে ভিকটিম মাটিতে লুটিয়ে পড়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে আসামী ভিকটিমের মৃত্যু নিশ্চিত ভেবে ঘটনাস্থল থেকে কৌশলে পালিয়ে যায়। উক্ত ঘটনা ভিকটিমের আত্মীয়-স্বজন স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে জানতে পেরে ভিকটিমকে উদ্ধার করে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ভিকটিমকে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদানপূর্বক চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট, ঢাকাতে রেফার্ড করেন। উক্ত হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার ভিকটিমের বাম চোখ নষ্ট হয়ে যাওয়ায় অপারেশনের মাধ্যমে অপসারণ করেন। বর্তমানে ভিকটিম আব্দুল আজিজ উক্ত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। উক্ত ঘটনার সংবাদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ব্যাপকহারে ছড়িয়ে পরলে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। অতঃপর র‍্যাব-৪ এর একটি চৌকস আভিযানিক দল আসামীকে গ্রেফতারের জন্য জোর তৎপরতা চালায় এবং তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তা ও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আসামীকে বর্ণিত ঘটনাস্থল হতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধৃত আসামী ভিকটিমকে হত্যাচেষ্টার বিষয়টি স্বীকার করে।

গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।