মুমূর্ষু রোগীর আশার আলো, "সামাজিক ও রক্তদান সেবায় আমরা"

মুমূর্ষু রোগীর আশার আলো, "সামাজিক ও রক্তদান সেবায় আমরা"
ছবি : ইমরান হোসেন

পবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ সাতক্ষীরা জেলার একটি বৃহৎ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন "সামাজিক ও রক্তদান সেবায় আমরা।" ২০২০ সালের ২৬ শে ডিসেম্বর সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয়।সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আলিপুর গ্রামের রিপন হোসেন নামের এক যুবক।সাতক্ষীরা জেলায় অবস্থিত এই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটিতে ২৩৫৬ জন সদস্য এবং ৮২ জন সেচ্ছাসেবক নিরলসভাবে নিঃস্বার্থে মানুষের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। 

১৩ই আগষ্ট শুক্রবার "সামাজিক ও রক্তদান সেবায় আমরা" এর উদ্যোগে "ফ্রি ব্লাড ক্যাম্পিং ও স্বেচ্ছায় রক্তদানে উৎসাহিত করণ কর্মসূচী" র আয়োজন করা হয়।উক্ত কর্মসূচীর মাধ্যমে সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত ১৫০০+ মানুষের ব্লাড গ্রুপ নির্ণয়সহ বিনামূল্যে রক্তদানে অনুপ্রাণিত করা হয়।

"সামাজিক ও রক্তদান সেবায় আমরা " সম্পর্কে সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা রিপন হোসেন বলেন,রক্তদানের মাধ্যমে মুমূর্ষু রোগীর প্রাণদান এবং গর্ভবতী মায়ের প্রাণের নিশ্চয়তা দেওয়াসহ বিনামূল্যে সার্বিক সুস্থ তার ধারা চলমানের লক্ষ্যেই প্রতিষ্ঠিত হয়েছে সংগঠনটি। করোনামহামারিতে রক্তদান সেবার পাশাপাশি করোনারোগীকে আমরা ফ্রি অক্সিজেন সেবাও প্রদান করছি।
তিনি আরো জানান যে,রক্ত দিয়ে আমরা নতুন জীবন গড়ি। আমাদের রক্তদানে যদি অসহায় রোগীদের মুখে হাসি ফুটে ওঠে, একটি মুমূর্ষু রোগীর প্রান বাঁচে; তাহলে কেনো করবোনা স্বেচ্ছায় এই  রক্তদান? চাঁদ যেমন নিঃস্বার্থভাবে রাত্রিকে আলো প্রদান করে তেমনি স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে সারাজীবন এভাবে নিঃস্বার্থভাবে অসহায় মানুষের সেবা প্রদান করব।

অর্থের অভাবে স্ত্রী সেলিনার জন্য রক্ত জোগাড় করতে ব্যর্থ শাহীনূর। শাহীনূর বলেন, আমি পেশায় একজন ভ্যানচালক।সংসারের অভাব-অনটনের মধ্যে অর্থের বিনিময়ে রক্ত জোগাড় করা আমার পক্ষে অসম্ভব। "সামাজিক ও রক্তদান সেবায় আমরা " আমার স্ত্রীকে বিনামূল্যে রক্তদান করে নতুন জীবন দান করেছে।
মানবতামূলক সংগঠন "সামাজিক ও রক্তদান সেবায় আমরা" এর বিনামূল্যে রক্তদানের এই মহৎ উদ্যোগ আশার আলো জাগিয়েছে মুমূর্ষু রোগীদের মধ্যে।