মালয়েশিগামী ট্রলারডুবির ঘটনায় মামলা : ৪ মরদেহ উদ্ধার

মালয়েশিগামী ট্রলারডুবির ঘটনায় মামলা : ৪ মরদেহ উদ্ধার
ছবি: সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার, ৫ অক্টোবর।। কক্সবাজারের টেকনাফে মালয়েশিয়াগামী ট্রলারডুবির ঘটনায় রোহিঙ্গাসহ ২৪ জনকে আসামি করে মানবপাচার আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বুধবার টেকনাফ থানায় মামলা করেন বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মো. মুবারক। এই মামলায় ২৪ জনকে এজাহারভুক্ত সহ ১০-১৫ জনকে অজ্ঞাত আসামী দেখানো হয়। এ পর্যন্ত তিন নারী ও এক শিশুসহ চারজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। জীবিত উদ্ধার করা হয় চার দালালসহ ৪৫ জনকে। তবে এদের মধ্যে বাংলাদেশী ৪ দালালকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। মামলায় আসামিরা হলেন, টেকনাফ সাবরাং কাটাবনিয়া এলাকার হাসান আলীর ছেলে শহিদ উল্লাহ, উখিয়া বালুখালী ক্যাম্পের মো. রশিদ একই ক্যাম্পের বাসিন্দা মো. শরীফ, মহেশখালী কুতুবজুম গ্রামের মো. সেলিম একই এলাকার কুরবান আলী, ঈদগাঁর হাজিপাড়ার মো. আবদুল্লাহ।

এই মামলায় মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত অভিযানে আরও দুইজনকে আটকসহ ৬ জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক নুর মোহাম্মদ জানান, মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) ভোর ৪ টার দিকে টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের হলবনিয়ায় সাগরে মালয়েশিয়াগামী ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ও কোস্ট গার্ড সদস্যরা তিন রোহিঙ্গা নারী ও এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে।

এছাড়াও নারী ও পুরুষসহ ৪৫ জনকে বিপন্ন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান জানান, ট্রলারডুবির ঘটনায় মামলা হয়েছে। উদ্ধার রোহিঙ্গাসহ ৬ জনকে আটক দেখানো হয়েছে। বাকি আসামীদের ধরতে পুলিশের অভিযান চলছে। পাশাপাশি উদ্ধারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে স্বস্ব ক্যাম্পে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। মঙ্গলবার ভোরে অবৈধভাবে সাগরপথে মালয়েশিয়া যাত্রাকালে টেকনাফ উপকূলীয় বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটে। ৪ জনের লাশ ও জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ৪৫ জনকে।

উদ্ধার ব্যক্তিদের মধ্যে ৮ নারীসহ ৪১ রোহিঙ্গা এবং ৪ বাংলাদেশি দালাল রয়েছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। উল্লেখ্য, ভুক্তভোগীদের বরাতে জানা গেছে ট্রলারে ৮৫ জন মালয়েশিয়াগামী ছিলেন।