মানুষ রূপের দানব এখন চারদিকে !

মানুষ রূপের দানব এখন চারদিকে !
ছবি সংগৃহীত

জাহিদুল হাসান জাহিদ:-পৃথিবীতে মানুষের আবির্ভাব ঘটে তখন মানব নামের এই প্রাণীর জানা ছিলো না কোনো শিক্ষা দীক্ষা।ছিলো না উচ্চতর ডিগ্রি।ছিলো না আধুনিক রড সিমেন্টের আলিশান ইমারত বা বিল্ডিং বাড়ি।বাঁচার প্রয়োজনে পাহাড়ের বিভিন্ন গুহায় গোত্র নিয়ে বসবাস করতো মানব।ছিলো না দখল বাজী চাঁদা বাজী দখল করে ঘরবাড়ি করার প্রতিযোগিতা।তাদের ছিলো না রঙ্গের ঢংয়ের টাইট ফিট আধুনিক পোশাক।পোশাক বলতে ছিলো গাছের পাতা গাছের ছাল দিয়ে শরীরের গোপন অঙ্গ কোনো মতো ঢেকে রাখা।তাও রপ্ত করতে লেগেছিল কয়েক যুগ।পরে শিখেছিল পশুর চামড়ার ব্যবহার।তাও ছিলো বড়ই অতভুত।সেই মানুষ কোট টাই পড়ে সেজেছে এখন দূর্নীতিবাজ।নারী পুরুষের মধ্যে ছিলো না ভেদাভেদ।সেই সময় নারীকে ধর্ষিত হয়ে লাশ হয়ে পড়ে থাকতে হয়নি পুকুর বা নদীর পাড়ে।তবে প্রেম ভালোবাসা ছিলো অটুট।উলংগ নারী পুরুষের কোলে পিঠে বড় হয়েছে শত শিশু। ধর্ষিত হয়ে শিশুকে কাতরাতে হয়নি হাসপাতালের বেডে।এখন সাত বছরের শিশু ধর্ষিতা হয়ে হাসপাতালের বেডে শুয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে প্রতিদিন।আবার স্বামীকে বেধেঁ স্ত্রীকেও হতে হয় ধর্ষণের শিকার।খাদ্যের অভাবে অনাহারে থেকেছে বহু দিন তবুও অন্যের খাদ্য লুন্ঠন করে কেড়ে খায়নি। অন্যের খাদ্য লুন্ঠন হয় এখন প্রতিদিন।আগুন জ্বালাতে শিখেনি যখন মানুষ তখন কাঁচা খেয়েছে সবই। আগুন জ্বালাতে শিখতে লেগেছে বহদিন। সেই আগুন দিয়ে বর্বর মানুষ শত মানুষকে পুড়িয়ে মারছে। আধুনিকতার ছোঁয়ায় গাঁ ভাষিয়ে পশুত্বকে বরণ করে পঞ্চায়েতের দিকে এখন বর্বর কিছু মানুষ শুরু করেছে শিশু ধর্ষণ, নারী ধর্ষণ।এসব মানুষ নামের পশুদের কারণে সমাজে কেউ'ই এখন নিরাপদ নয়।মানুষ কি আধুনিক প্রযুক্তির যুগে প্রবেশ করছে না কি আধুনিকতার ছোঁয়ায় পশুত্ব বরণ করছে ?