যৌক্তিক কারণ ছাড়া বাইরে বের হলে গ্রেফতার : ডিএমপি

যৌক্তিক কারণ ছাড়া বাইরে বের হলে গ্রেফতার : ডিএমপি
ছবিঃ সংগৃহীত

আজকাল বাংলা ডেস্ক।। ৩০ জুন, বুধবার।। মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেশে জারি করা হয়েছে কঠোর বিধিনিষেধ। বুধবার দুপুরে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এবারের লকডাউনে কঠোর অবস্থানে থাকবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এমন তথ্য দিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার শফিকুল ইসলাম।

বুধবার (৩০ জুন) ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘অনুমোদিত কারণের বাইরে কেউ রাস্তায় বের হলে দণ্ডবিধির ২৬৯ ধারায় তাদের গ্রেফতার করা হবে। এই ধারায় সর্বোচ্চ শাস্তি ৬ মাসের জেল।’

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘সঙ্গত কারণ ছাড়া কেউ যদি ঘর থেকে বের হয়, তবে তাকে গ্রেফতার করা হবে। তার বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ২৬৯ ধারায় মামলা দিয়ে তাকে আদালতে পাঠানো অথবা মোবাইল কোর্ট দিয়ে তাৎক্ষণিক শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।’

লকডাউন বাস্তবায়নে ডিএমপির ব্যবস্থা :

১. ঢাকা মহানগরীর প্রধান প্রধান সড়ক ও অলিগলিতে পুলিশি টহল বাড়ানো হবে।

২. ঢাকা মহানগরীর প্রবেশ/বাহিরপথ এবং গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে চেকপোস্ট ব্যবস্থাপনা জোরদার করা হবে।

৩. বিধিনিষেধ অমান্যকারীদের ডিএমপি অর্ডিন্যান্স অনুযায়ী গ্রেফতার ও আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

৪. ক্ষেত্রবিশেষে ট্রাফিক আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ২৬৯ ধারা অনুযায়ী গ্রেপ্তারসহ নিয়মিত মামলা করা হবে।

৫. মহানগরী এলাকায় নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় সহায়তা করা হবে।

ফৌজদারি দণ্ডবিধির ২৬৯ ধারায় বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি যদি বেআইনিভাবে বা অবহেলামূলকভাবে এমন কোনো কাজ করেন। যা জীবন বিপন্নকারী মারাত্মক কোনো রোগের সংক্রমণ ছড়াতে পারে। তা জানা সত্ত্বেও বা বিশ্বাস করার কারণ থাকা সত্ত্বেও তা করেন, তবে সেই ব্যক্তি ছয় মাস পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা অর্থদণ্ড, কিংবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।