রাঙ্গুনিয়ায় ভয়াবহ আগুনে পুড়ে ছাই ৬ বসতঘর, অর্ধ কোটি টাকার ক্ষতি 

রাঙ্গুনিয়ায় ভয়াবহ আগুনে পুড়ে ছাই ৬ বসতঘর, অর্ধ কোটি টাকার ক্ষতি 
ছবিঃ সংগৃহীত
এম. মতিন, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি।।  ২৬ আগস্ট, বৃহস্পতিবার।। 
চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন ধরে পুড়েছে ৬টি বসতঘর। এসময় ঘরে থাকা মূল্যবান মালামাল, সোনা ও নগদ টাকা পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে প্রায় ৫০ লাখ টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর।
আজ বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) দুপুর ১১ টার দিকে উপজেলার লালানগর ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের ইসলামীয় পাড়া এলাকার মকবুল সওদাগরের বাড়িতে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দুপুর ১১ টার দিকে আবদুল হকের পুত্র মোঃ বাহাদুর ইসলাম টিটুর ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। মুহূর্তের মধ্যে আগুনের তীব্রতায় পার্শ্ববর্তী মৃত জাফর আহমদের ছেলে জাহেদুল ইসলাম, হাবীবুর রহমান, সেলিম উদ্দিন এবং মৃত সৈদুল হকের ছেলে আমিনুল হক ও ফয়জুল হকের আরও ৫টি ঘর পুড়ে যায়। এসময় বাড়িতে থাকা লোকজনের চিৎকারে আশেপাশের গ্রামবাসী এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেন। পরে স্থানীয়রা রাঙ্গুনিয়া ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়। খবর পেয়ে রাঙ্গুনিয়া ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। 
কিন্তু তার আগে আগুনে ৬টি বসতঘরের ভেতরে থাকা আসবাবপত্র, স্বর্ণ, নগদ টাকা, কাপড়-চোপড় সহ সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এতে প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো।
রাঙ্গুনিয়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মো. কামরুজ্জামান জানান, খবর পেয়ে দুপুরে সাড়ে ১১ টার দিকে আমাদের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ১ ঘন্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় পার্শ্ববর্তী আরও ৫টিসহ
৬টি ঘরই পুড়ে যায়। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রাথমিকভাবে ২০-২৫ টাকা ধারণা করা হলেও তদন্ত শেষে বলা যাবে বলে জানান তিনি।
ক্ষতিগ্রস্ত জাহেদুর ইসলাম জানান, সকাল ১১ টার সময় হঠাৎ ঘরে আগুন লাগার খবর পেয়ে দৌড়ে এসে দেখি আমার বসতঘর দাউদাউ করে জ্বলছে। পরিবারের সদস্যরা কোন মতে প্রাণ নিয়ে ঘর থেকে বের হতে পেরেছে। আগুন আমাকে নিঃস্ব করে দিয়েছে। পরিবারের সদস্যেদের পরনের কাপড় ছাড়া সব কিছুই পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। তিনি সরকার ও স্থানীয় বিত্তবানদের সহায়তা চেয়েছেন।