রংপুরে জিএম কাদেরের কুশপুত্তলিকা দাহ

রংপুরে জিএম কাদেরের কুশপুত্তলিকা দাহ
ছবি: সংগৃহীত
রংপুরে বিক্ষোভ মিছিল শেষে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের কুশ পুত্তলিকা দাহ করেছে রাঙ্গাপন্থী মোটর মালিক ও শ্রমিকরা। একই সঙ্গে মসিউর রহমান রাঙ্গাকে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দলে পুনর্বহাল করা না হলে কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। এদিকে জি এম কাদেরের পুত্তলিকা দাহকে কেন্দ্র করে রাঙ্গাপন্থীদের সঙ্গে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে কমপক্ষে ২৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর গ্র্যান্ড হোটেল মোড় থেকে জেলা মোটর মালিক সমিতির নেতা ও জেলা জাতীয় পার্টির সহসভাপতি আব্দুল মান্নানের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলে মোটর মালিক ও শ্রমিকরা ছাড়াও জাতীয় পার্টির রাঙ্গাপন্থীরা অংশ নেন। মিছিলটি প্রেসক্লাব চত্বর হয়ে জাহাজ কোম্পানি মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে বিক্ষুব্ধ রাঙ্গাপন্থীরা পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের কুশপুত্তলিকা দাহ করে। মিছিল নিয়ে ফেরার পথে জি এম কাদের বিরোধী বিভিন্ন স্লোগান দেন তারা। এ সময় দৈনিক দাবানল মোড়ে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের সঙ্গে তাদের প্রায় আধা ঘণ্টা ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে বিপুল পরিমাণ দাঙ্গা পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
রংপুর জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি ও মোটর মালিক সমিতির নেতা আব্দুল মান্নান বলেন, মসিউর রহমান রাঙ্গাকে দলে ফিরিয়ে নিতে হবে। তার প্রতি অবিচার করা হয়েছে। তার অব্যাহতি আমরা মানছি না। এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। অবিলম্বে রাঙ্গাকে দলে বহাল করতে হবে। তা নাহলে আগামীকাল থেকে কঠোর আন্দোলন হবে।
বিক্ষোভ মিছিল ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া প্রসঙ্গে জানতে রংপুর মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজ রহমানকে ফোন করা হলে তিনি কল রিসিভ করেননি।
রংপুর নগরীর গ্র্যান্ড হোটেল মোড়ে রাঙ্গাপন্থীদের বিক্ষোভ।
রংপুর নগরীর গ্র্যান্ড হোটেল মোড়ে রাঙ্গাপন্থীদের বিক্ষোভ।
এর আগে, বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে রংপুর মহানগরীর সেন্ট্রাল রোডে জাতীয় পার্টি কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য, রংপুর সিটি কর্পোরেশন মেয়র ও মহানগরের সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, রাঙ্গা সাহেব পার্টির চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে যে চ্যালেঞ্জ ছুড়েছেন তা ঠিক করেননি। পার্টির বিরুদ্ধে গিয়ে কেউ কোনোদিন সুফল ভোগ করতে পারেনি। পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের রংপুরে এলে প্রয়োজনে দলের নেতাকর্মীরা তাকে সাপোর্ট দেবেন।
সিটি মেয়র বলেন, দলের ভেতরে থেকে দলের বিরুদ্ধে কথা বলা যাবে না। দলের স্বার্থে চেয়ারম্যান যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সেটাতে আমরা একমত। তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। সময় হলে আবার তাকে দলে ফিরে আসার সুযোগ দেওয়া হতে পারে। পার্টির স্বার্থে রাঙ্গাকে উত্তেজিত না হয়ে শান্ত থাকার আহ্বান জানান তিনি।
প্রসঙ্গত, বুধবার জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রেসিডিয়াম সদস্য সহ সকল পদ থেকে মশিউর রহমান রাঙ্গাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। জাতীয়পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের দলীয় গঠনতন্ত্র প্রদত্ত ক্ষমতাবলে পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সহ সকল পদ-পদবি থেকে মশিউর রহমান রাঙ্গাকে অব্যাহতি প্রদান করেন। ইতোমধ্যে এ আদেশ কার্যকর হয়েছে।