লক্ষ্মীপুরে দুই বিদ্যালয়ের শ্রেণী পাঠদান বন্ধ, স্কুল মাঠে সংবর্ধণা

লক্ষ্মীপুরে দুই বিদ্যালয়ের শ্রেণী পাঠদান বন্ধ, স্কুল মাঠে সংবর্ধণা
ছবি: সংগৃহীত

এস এম আওলাদ হোসেন, সিনিয়র রিপোর্টার।।লক্ষ্মীপুরে ২টি বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের শ্রেণীকার্য বন্ধ রেখে স্কুল মাঠে নবগঠিত জেলা ছাত্রলীগের নের্তৃবৃন্দদের ছাত্রসংবর্ধনার আয়োজন করা হয়েছে।

সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টা থেকে মধ্য বাঞ্চানগর এন আহম্মদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও লক্ষ্মীপুর বালিকা বিদ্যা নিকেতন মাঠে এ সংবর্ধনার আয়োজন করে সদর উপজেলা ও সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ। এতে করে একদিনের শিক্ষা কার্যক্রম থেকে বঞ্চিত হয়েছেন দুই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

বৃষ্টিতে ভিজে বিদ্যালয়ে এসে পাঠদান বন্ধ থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে অভিবাবক ও ঐশিক্ষার্থীরা। বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে- বিষয়টি পূর্বে অবগত করেনি কেউ।

এদিকে অনুমতিহীনভাবে পাঠদান বন্ধ রেখে সংবর্ধণার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানালেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরান হোসেন।

জানা যায়, জেলা ছাত্রলীগের নব-গঠিত কমিটির সভাপতি মোঃ সাইফুল ইসলাম রকি ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহাদাত হোসেন ভূইয়াসহ সকল নের্তৃবৃন্দের ছাত্রসংবর্ধণা সকাল ১১ টায় শুরু হওয়ার কথা। কিন্তু শুরু হয় দুপুর পৌনে ২টায়। সংবর্ধনাকে ঘিরে সকাল নয়টা থেকে জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও ইউনিয়ন থেকে বিপুল নেতাকর্মী বিদ্যালয় মাঠে সমবেত হন। এতে লক্ষ্মীপুর বালিকা বিদ্যা নিকেতন ও মধ্য বাঞ্চানগর এন আহম্মদীয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাঠদান ব্যহত হয়। এছাড়া প্রধান অতিথিসহ সংবর্ধিত অতিথিদের বরণ করতে লক্ষ্মীপুর-ঢাকা আঞ্চলিক মহাসড়ক ঘন্টাব্যাপীতে অবস্থান নেয় নেতাকর্মীরা। এতে আটকা পড়ে যাত্রীবাহী বাসসহ পণ্যবাহী অসংখ্য গাড়ী। এসময় ড্রোন উড়তে দেখা যায় অনুষ্ঠানস্থলে।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শাজাহান খান এমপি। সদর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি তারেক মাহমুদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন এমপি প্রমুখ।

লক্ষ্মীপুর বালিকা বিদ্যা নিকেতন প্রধান শিক্ষক আলমগীর আলম বলেন- অন্য সময় সমাবেশ হলে আমাদেরকে পূর্বে অবগত করেন। কিন্তু এবারের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান সম্পর্কে আমাদের কেউ কিছু জানায়নি। সকালে বৃষ্টিতে ভিজে শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে আসার পর দুই ঘন্টা পাঠদান করা হয়েছে। এরপর মাইকের আওয়াজে আর করা সম্ভব হয়নি। তাই বাধ্য হয়ে শিক্ষার্থীদের ছুটি দেওয়া হয়ছে।

মধ্য বাঞ্চানগর এন আহম্মদীয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবিদা নাজমীন বলেন- আমাকে গতকাল ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে অনুষ্ঠান সম্পর্কে জানানো হয়েছে। তাই শিক্ষার্থীদের সংরক্ষিত ছুটি দেওয়া হয়েছে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোঃ ইমরান হোসেন বলেন- বিষয়টি খতিয়ে দেখে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।