লক্ষ্মীপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় কোরআনের হাফেজ নিহত

লক্ষ্মীপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় কোরআনের হাফেজ নিহত
ছবি: সংগৃহীত

স এম আওলাদ হোসেন,  সিনিয়র রিপোর্টার।। লক্ষ্মীপুরে সিএনজি এবং মটর সাইকেল দূর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই কোরআনের হাফেজ ইসমাইল হোসেন জিহাদ(১৭) নিহত হয়েছে। 

জিহাদের পরিবার ও চন্দ্রগঞ্জ হাইওয়ে থানা সূত্রে   বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

নিহত হাফেজ জিহাদ রবিবার (১৬ অক্টোবর) সকাল ১০টার দিকে চন্দ্রগঞ্জ থানাধীন চন্দ্রগঞ্জ ইউপি’র চন্দ্রগঞ্জ বাজারস্থ আব্দুল কাদের পন্ডিত বাড়ির সামনে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সিএনজি এবং মটর সাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

মটর সাইকেল আরোহী দৈনিক জবাবদিহি প্রত্রিকার চন্দ্রগঞ্জ থানা প্রতিনিধি মোঃ মনির হোসেন চন্দ্রগঞ্জ ইউপির দেওপাড়া গ্রামের কলিমুল্লা’র ছেলে। মটর সাইকেলটি চন্দ্রগঞ্জ থেকে লক্ষ্মীপুরের দিকে এবং সিএনজিটি লক্ষ্মীপুর থেকে চন্দ্রগঞ্জের দিকে আসছিল। ঘটনাস্থলে সিএনজি ড্রাইভার অতিরিক্ত গতি দিয়ে অতিক্রম করতে গিয়ে মটর সাইকেলের মুখোমুখি হয়ে যায়।

ঘটনাস্থলে সিএনজিতে থাকা হাফেজ জিহাদ পড়ে গেলে সিএনজি তার বুকের উপর দিয়ে চলে যায়, এতে সে গুরুতর আহত হয়। পরে তাকে স্থানীয় এসএমকে হসপিটাল নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি দেখলে নোয়াখালী সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। নোয়াখালী সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জিহাদকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

উল্লেখ্য হাফেজ ইসমাইল হোসেন জিহাদ হাজিরপাড়া ইউপি’র আলাদাদপুর গ্রামের দেয়ানজি বাড়ির বাংলাদেশ বর্ডার গার্ডে কর্মরত জহির আহম্মেদ’র ছেলে। অপর দিকে সাংবাদিক মনির হোসেন গুরুতর আহত অবস্থায় নোয়াখালী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।

চন্দ্রগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মফিজ উদ্দিন জানান, চন্দ্রগঞ্জ বাজারে কলেজের সামনে সিএনজি এবং মোটর সাইকেল দূর্ঘটনায় ১জন নিহত হয়েছে। নিহতের কেউ এখনো মামলা বা আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করেন নি। যদি তারা মামলা না করে তাহলে আমরা নিজেরাই অভিযুক্ত সিএনজি চালকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করব।