শিক্ষক দিবসের ডাক- শিক্ষাঙ্গন হোক যৌন হয়রানি ও বাল্য বিবাহ মুক্ত

শিক্ষক দিবসের ডাক- শিক্ষাঙ্গন হোক যৌন হয়রানি ও বাল্য বিবাহ মুক্ত
ছবিঃ সংগৃহীত

মো. নজরুল ইসলাম।। মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি।। "শিক্ষার পুনরুদ্ধারের কেন্দ্রবিন্দুতে শিক্ষক" এই প্রতিপাদ্য কে সামনে রেখে এবং শিক্ষকদের প্রগতির আলোয় আলোকিত হোক আগামী প্রজন্ম ও সমাজ এই স্লোগান কে ধারণ করে  বেসরকারি  উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক এর আয়োজনে আজ বিকেল ৪.৩০মি. থেকে সন্ধা ৬.০০ ঘটিকা পর্যন্ত  জুম প্লাটফর্মে বিশ্ব শিক্ষক দিবস উপলক্ষে জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ এর আলোকে একমুখী শিক্ষাক্রমের নতুন কারিকুলাম বাস্তবায়ন এবং শিক্ষার বৈষম্য দূরীকরনে  করনীয় শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

আলোচনা সভায় সিংগাইর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষক নেতা জনাব মো. আকরাম হুসেন এর সভাপতিত্বে এবং বারসিক আঞ্চলিক সমন্বয়কারী বিমল রায় এর সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন লেখক গবেষক ও উন্নয়নকর্মী মো. নজরুল ইসলাম। প্রধান আলোচক হিসেবে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মানিকগঞ্জ জেলা শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জনাব মীর্জা ইস্কান্দার। আলোচনায় আরো অংশগ্রহণ করেন মানিকগঞ্জ সিংগাইর অঞ্চলের বায়রা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. বিল্লাল হোসেন, কৌরী এম এ রউফ কলেজের প্রভাষক মো. আরশেদ আলী, সিরাজগঞ্জ থেকে কৃষিবিদ মো.ইসমাইল হোসেন।আরো কথা বলেন কালিয়াকৈর খান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. যুবায়ের হোসেন, বেতিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী  শিক্ষক শ্রী লিটন সাহা,  হরিরামপুর থেকে মো. সালাম মাস্টার, হরিরামপুর শিক্ষার আলো পাঠশালা সমন্বয়কারী মীর নাদিম প্রমুখ।এছারাও  শিক্ষকদের সম্মানে বরিশাল থেকে বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী অলিউজ্জামান লাবিদ  গান পরিবেশন করেন। 
বক্তারা বলেন আজ সমাজে শিক্ষা ও শিক্ষকের মর্যাদা নেই, সমাজ ও রাষ্ট্র  শিক্ষকদের নানাভাবে ব্যাবহার করছে,মৌখিক ভাবে সম্মান দিলেও প্রকৃত সম্মান দিচ্ছে না। আমরা শিক্ষকদের যৌক্তিক দাবিগুলো মেনে নেয়ার জন্য সরকারের কাছে জোর দাবি করছি। শিক্ষার নতুন কারিকুলাম যেন সকল প্রকার সাম্প্রদায়িকতামুক্ত হয়,শিক্ষাক্ষেত্রে যেন যৌন হয়রানি, বাল্য বিবাহ, ইভটিজিং না হয় সে ব্যাপারে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের আরো কাউন্সিলিং বাড়াতে হবে।