সীতাকুণ্ডের সৈয়দপুরে ইউপি নির্বাচনে আঃলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হারুন অর রশীদ ভূইয়া

সীতাকুণ্ডের সৈয়দপুরে ইউপি নির্বাচনে আঃলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হারুন অর রশীদ ভূইয়া
ছবিঃ সংগৃহীত

মোহাম্মদ হাসান।। স্টাফ রিপোর্টার।।  ০১ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার।। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চট্রগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ড উপজেলার ১নং সৈয়দপুর ইউনিয়ন থেকে আওয়ামী লীগের নৌকা নিয়ে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন ১নং সৈয়দপুর ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য ও সৈয়দপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান হারুন অর রশীদ ভূইয়া। 

হারুন অর রশীদ ভূঁইয়া সৈয়দপুর ইউনিয়নের উত্তর বগাচতর গ্রামের মরহুম মৌলভী সফিউর রহমান ভূইয়ার ছেলে, যিনি দীর্ঘ দিন যাবত সীতাকুণ্ড উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও সৈয়দপুরে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ছিলেন। তিনি নিজেও উপজেলা আঃলীগের কার্যকরী কমিটির সাবেক সদস্য এবং সৈয়দপুর ইউনিয়ন আঃলীগের সহ-সভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদক এবং দুইবার ১৯৯৭-২০০৩সালের নির্বাচিত ইউপি সদস্য ছিলেন।

এছাড়া ও তিনি ২০০৮ ডিসেম্বর থেকে ২০১১ সালের জুন পর্যন্ত প্রায় আড়াই বছর সৈয়দপুর ইউনিয়ন পরিষদের একজন সফল, সৎ, যোগ্য ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ছিলেন। রাজনীতির পাশা পাশি তিনি তার এলাকায় ব্যাপক সেবা মূলক কাজ করেন, তার মধ্যে উল্লেখ যোগ্য হল উত্তর বগাচতর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, বগাচতর ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা, ভূইয়ার হাঁট বাজার এবং উত্তর বগাচতর জলদাশ পাড়ায় ভুমিহীনদের মাঝে জমি দান করেন এবং স্বাধীনতার ৫০বছর পর উওর বগাচতর ও দক্ষিণ বগাচতর গ্রামের ৩০হাজার মানুষ খালের উপর দিয়ে যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে বাঁশের সাঁকো থেকে ষ্টীলের সেতু পেয়েছেন তাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন হারুন রশীদ ভূইয়া। এলাকার মানুষের দূঃখ দুর্দশার কথা চিন্তা করে সেবামূলক প্রতিষ্ঠান মোস্তফা হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন এর দরজা কড়া নেড়ে ছিলেন যেন তার এলাকার মানুষ বাঁশের সাঁকো থেকে মুক্তি পায়। ২০১১ সালের নির্দলীয় ইউপি নির্বাচনেও তিনি প্রার্থী ছিলেন, জনগণের আকুষ্ঠ সমর্থন পাওয়ার পরও দলীয় নেতাদের প্রতি সম্মান জানিয়ে এবং দলের বৃহত্তর স্বার্থের কথা ভেবে নির্বাচনের মাত্র ২দিন আগে নিজেকে নির্বাচন থেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন, প্রসঙ্গত তখন দলীয় প্রতীক ছিলনা তাও দলের বৃহত্তর স্বার্থের কথা চিন্তা করেছিলেন। 

হারুন অর রশীদ ভূইয়া এই প্রতিবেদককে কে বলেন, বাংলা,বাঙালি ও বাংলাদেশের সকল সোনালী অর্জনের অংশীদার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।জাতির পিতার আর্দশ ধারণ করে, দেশরত্ন শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাস্তবায়নে, মহান মুক্তিযুদ্ধের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বুকে নিয়ে আগামী দিনের সুখী সমৃদ্ধ ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হয়ে কাজ করার ইচ্ছা আমার রয়েছে। তাছাড়া আমি দলের জন্য অনেক আনোন্দলন সংগ্রাম করেছি, অনেক নির্যাতনের শিকার হয়েছি এবং দুঃসময়ে যতটা সম্ভব দলকে সংগঠিত রাখার চেষ্টা করেছি।

 সৈয়দপুর ইউনিয়নের আপামর জনতার একটি চাওয়া আমি যেন সৈয়দপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে সম্মত হই। তাই সৈয়দপুর বাসীর চাহিদা রক্ষা করতে আমি আসন্ন ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশা করছি। তিনি আরও বলেন, আমার দৃঢ় বিশ্বাস আমার ইউনিয়নের নৌকা প্রেমী সাধারণ জনগণের চাহিদা পূরণে আমাকে আগামী ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের তথা নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহণের সুযোগ করে দিলে ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চল ও নির্বাচনী এলাকায় জনকল্যাণ মূলক কাজে আরও ব্যাপকভাবে অংশ গ্রহণ করতে পারব। আমি বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার সুযোগ্য কন্যা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্ত কে মেনেনেব। আগামী ইউনিয়ন নির্বাচনে মনোনয়ন দাতাগণ সৈয়দপুর ইউনিয়ন বাসীর চাওয়াকে যথাযথ মূল্যায়ন করবেন এমনটাই আশা করছেন তিনি।