স্ত্রী হত্যার অভিযোগে স্বামীর ফাঁসির আদেশ

স্ত্রী হত্যার অভিযোগে স্বামীর ফাঁসির আদেশ
ছবি সংগৃহীত

স্টাফ রিপোর্টার।। যৌতুক নিয়ে ঝগড়া বিবাদের এক পর্যায়ে স্ত্রী সুমি আখতারকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে স্বামী আলমগীর হোসেনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-২এর বিচারক। সেই সাথে ২০হাজার টাকা জরিমানার আদেশও দেয়া হয়।

মঙ্গলবার(২১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ট্রাইবুনালের বিচারক মো: মাহাবুবুর রহমান আসামীর উপস্থিতিতে এ আদেশ ঘোষনা করেন। স্বাক্ষ্য প্রমানে প্রমানিত না হওয়ায় অপর ৭জনকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে।
বিগত ২০১৬সালের ৯সেপ্টেম্বর রাতে যৌতুক নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বাধে। এর এক পর্যায়ে স্বামী খাটের পায়া দিয়ে স্ত্রীর মাথায় আঘাত করলে তার মৃত্যু হয়। এ ব্যাপারে নিহতের বাবা খতিবর রহমান বাদী হয়ে আলমগীর হোসেনসহ ৮জনের নামে ডিমলা থানায় মামলা দায়ের করেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিমলা থানার উপ-পরিদর্শক আতিকুর রহমান স্বামী আলমগীর হোসেনকে রেখে অপর ৭জনকে অব্যহতি দিয়ে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরে বাদী আদালতে নারাজী করলে বিজ্ঞ আদালত অদিকতর তদন্তের জন্য পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দেন। পিবিআই দীর্ঘ তদন্ত শেষে ৮জনের নামে অভিযোগপত্র দাখিল করে।
নিহত সুমি আখতার ডিমলা উপজেলার উত্তর সোনাখুলি গ্রামের খতিবর রহমানের মেয়ে। আর ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আলমগীর হোসেন দক্ষিন সোনাখুলি গ্রামের সিরাজুল ইসলামে ছেলে।
রাষ্ট্র পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন পাবলিক প্রসিকিউটর রমেন্দ্র নাখ বর্দ্ধন জানান, যৌতুকের টাকার জন্য একজন স্ত্রীকে নির্যাতন ও আগুনের ছ্যাকা দিয়ে হত্যা জঘন্যতম অপরাধ। মামলার রায়ে অপরাধীর সর্বোচ্চ সাজা হয়েছে। ও আসামী পক্ষে ছিলেন অ্যাড. মো: আল বরকত হোসেন