সুন্দরগঞ্জে কালবৈশাখী ঝড়ের উষ্ণ বাতাসে পুড়ে গেছে ৩৫ হেক্টর জমির ফসল

সুন্দরগঞ্জে কালবৈশাখী ঝড়ের উষ্ণ বাতাসে পুড়ে গেছে ৩৫ হেক্টর জমির ফসল
ছবিঃ সংগৃহীত

আবু তাহের।। স্টাফ রিপোর্টার।। গাইবান্ধা, ১৩ এপ্রিল, মংগলবার।। গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে কালবৈশাখী ঝড়ের উষ্ণ বাতাসে পুড়ে গেছে ৩৫ হেক্টর জমির ফসল। এতে ওইসব ইউনিয়নের কৃষকরা মৌসুমের ইরি-বোরো ফসল হারিয়ে চরম বিপাকে পড়েছে। 

জানা গেছে, চলতি মৌসুমে গত ৪ এপ্রিল রোববার বিকালে হঠাৎ বৃষ্টি বাদল ছাড়াই উপজেলার কাপাসিয়া, চন্ডিপুর, কঞ্চিবাড়ি, শান্তিরাম, বেলকা, ছাপরহাটি, শ্রীপুর ও ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়নের উপর দিয়ে কালবৈশাখী ঝড় বয়ে যায়। আধা ঘন্টার ঝড়ের তান্ডবে লন্ডভন্ড হয়ে যায় উপজেলার পূর্ব ও উত্তরাঞ্চল। 
উপজেলার বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী ২৮০টি বসতবাড়ির ঘর, ২০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ১০২ হেক্টর জমির ফসল এবং ছোট বড় মিলে প্রায় ৫শ গাছপালা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে স্থানীয়দের দাবি অনুযায়ি এর পরিমাণ আরও বেশী। কৃষিতে ১২০ হেক্টর ফসলি জমির ফসল বিনষ্ট হয়। এরমধ্যে ৩৫ হেক্টর জমির ধানক্ষেত বৈরী আবহাওয়ার কারণে পুড়ে যায়। এতে ধানের পাতাসহ শিষ পুড়ে গেছে। 

এব্যাপারে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ সৈয়দ রেজা-ই মাহমুদ জানান, কালবৈশাখীর তান্ডবে বিশেষ করে ভুট্টাক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তবে উপজেলায় ৩৫ হেক্টর জমির বোরো ক্ষেত পুড়ে গেছে। তিনি  বলেন, বয়ে যাওয়া কালবৈশাখীর তান্ডবের সময় বৃষ্টি বাদল ছিল না। বৈজ্ঞানিকভাবে জানা গেছে, কালবৈশাখীর তান্ডবের সময় যদি তাপমাত্রা ৩৫ ডিগ্রী সেলসিয়াসের উপরে হয় তাহলে জমির ফসল পুড়ে যাওয়ার আশংকা থাকে।