সেপটিক ট্যাংকি পরিস্কার করতে গিয়ে প্রাণ গেল দুই নির্মাণ শ্রমিকের

সেপটিক ট্যাংকি পরিস্কার করতে গিয়ে প্রাণ গেল দুই নির্মাণ শ্রমিকের
ছবি: সংগৃহীত

 শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার, ৯ অক্টোবর।। কক্সবাজার শহরের কলাতলি লাইটহাউস এলাকায় কক্স ওশানিয়া কটেজে সেফটিক ট্যাংকে কাজ করতে গিয়ে রোববার ( ৯ আক্টোবর) দুপুরে বিষাক্ত গ্যাসে আক্রান্ত হয়ে দুইজন নির্মাণ শ্রমিক নিহত হয়েছেন। রোববার দুপুর ১ টার দিকে কলাতলি লাইট হাউসস্থ কক্স ওশানিয়া কটেজের সেপটিক ট্যাংক পরিষ্কার করার সময় জমানো গ্যাসে তারা দ্রুত অচেতন হয়ে যায় এবং তাদের জীবন হুমকিতে পডে। পরে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসলে তারা মারা যান বলে জানান ওসি রফিকুল ইসলাম।

নিহতরা হলেন-কক্সবাজার পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের সমিতিপাড়া এলাকার মৃত মো. সোলেমানের ছেলে আবুল কাশেম (৪৫) এবং শহরতলি নতুন জেলগেট এলাকার আব্দুল মোনাফের ছেলে নুরুল হুদা ওরফে জাম্বু (২৪)। এসময় অসুস্থ হয়েছেন শ্রমিক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান। তিনি কক্সবাজার শহরের ঘোনারপাড়ার বাসিন্দা। তাদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, রোববার দুপুরে শহরের কলাতলি লাইটহাউস এলাকায় সৈকতে আবাসিক এলাকায় সৌদি প্রবাসী মোস্তাক আহমদের নির্মাণাধীন কক্স ওশানিয়া কটেজের সেপটিক ট্যাংক পরিষ্কার করতে আসেন তিন শ্রমিক হাশেম, হাবিব ও জাম্বু । ট্যাংকে নামার পর তাদের আর কোনো সাড়া না পাওয়ায় অন্যান্য শ্রমিকদের সন্দেহ হয়। এসময় অন্য শ্রমিকরা অবচেতন অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক দুইজনকে মৃত ঘোষণা করেন। ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা জানিয়েছেন, ট্যাংকে জমে থাকা বিষাক্ত গ্যাস অথবা অক্সিজেনের অভাবে তাদের মৃত্যু হয়েছে।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, সেপটিক ট্যাংক পরিষ্কার করতে গিয়ে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। অন্য শ্রমিকরা তাদের মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে। মরদেহ দুটি ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। চিকিৎসকরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন, নির্মাণাধীন সেপটিক ট্যাংকের ভেতরে অক্সিজেন সংকটের কারণে তাদের মৃত্যু হয়েছে। তবে ময়না তদন্তের পর তাদের মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলে জানিয়েছেন তিনি।