স্বরশীলন আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র দিনব্যাপী আবৃত্তি কর্মশালা সমাপ্ত করলো। 

স্বরশীলন আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র দিনব্যাপী আবৃত্তি কর্মশালা সমাপ্ত করলো। 

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ "৫২'র প্রেরণায় স্বদেশ গড়ি " এ শ্লোগানকে প্রতিপাদ্য ধরে মাধবদীতে স্বরশীলন আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের আয়োজনে সম্পন্ন হয়ে গেলো দিনব্যাপী সুন্দর বাচনভঙ্গী, প্রমিত উচ্চারণ, উপস্থাপনা ও আবৃত্তি বিষয়ক কর্মশালা ২০২২। 

বিশিষ্ট আবৃত্তিকার ও প্রশিক্ষক, খেলাঘর কেন্দ্রীয় কমিটির আবৃত্তি বিষয়ক বিভাগীয় সম্পাদক আশরাফিয়া আলী আহম্মদ নানতু'র মূখ্য প্রশিক্ষণে কর্মশালার শুভ উদ্বোধন ঘোষনা করেন বিশিষ্ট কবি ও ছড়াকার ফজলুল হক মিলন। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কবি ফজলুল হক মিলন বলেন, যে শিশুটি তার নিজস্ব সংস্কৃতি মনে ধারন করেন বেড়ে ওঠে সে কখোনো অমানুষ হতে পারে না। এ ছাড়াও তিনি মাধবদীর সাহিত্য ও সাংস্কৃতির বিকাশে নিজ এলাকায় একটি সাংস্কৃতি বিকাশ কেন্দ্র স্থাপন সহ নিরলস কাজ করে যাওয়ার ঘোষনা দেন। 

বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের মাদবদী শাখার সংগঠন স্বরশীলন আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের নিজস্ব আয়োজনে সংগঠনটির মোট দশ (১০) জন বাচিক শিল্পী এ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন। অংশগ্রহণকৃতরা হলেন- নূর হুমায়রা আহমেদ পিংকী, শহীদুল্লাহ পিয়াস, তাছলিমা আক্তার কোকিলা, শ্রাবনী দাস, তিন্নী আক্তার , বৈশাখী দাস মুন্নি, তাজকিয়া হুমায়রা আদ্রা, অবন্তিকা হাসান তাথৈ প্রমূখ। 

এম মাহামুদুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তব্যে প্রধান প্রশিক্ষক আশরাফিয়া আলী আহম্মদ নানতু বলেন, সুন্দর ও শুদ্ধ উচ্চারণে কথা বলা একজন মানুষের জন্মগত অধিকার। একজন মানুষের চটপটে স্বভাবের প্রথম ও প্রধান শর্ত শুদ্ধ উচ্চারণে কথা বলা। স্বরশীলন আবৃত্তিচর্চা কেন্দ্রের এ আয়োজন নি:সন্দেহে তাদের লক্ষে পৌঁছাতে সহায়তা করবে। 

সবশেষে অংশগ্রহণকারী শিল্পীদের মাঝে দিনব্যাপী অনুষ্টিত কর্মশালায় অংশগ্রহণ সনদ ও কবি ফজলুল হক মিলনের লেখা কবিতার বিতরণ করে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়।