সিলেটে অটোরিকশায় তুলে নিয়ে তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধ’র্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার ৪

সিলেটে অটোরিকশায় তুলে নিয়ে তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধ’র্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার ৪
ছবি: সংগৃহীত

সিলেট।। ২০ মার্চ, শনিবার।। সিলেটের দক্ষিণ সুরমায় অটোরিকশায় করে তুলে নিয়ে এক তরুণীকে গণধ’র্ষণের মা’মলায় ৪ জনকে গ্রে’প্তার করেছে পু’লিশ। এদের মধ্যে ৩ জন শুক্রবার আ’দালতে ধ’র্ষণের দায় স্বীকার করে আ’দালতে জবানব’ন্দি দিয়েছেন। এরআগে বৃহস্পতিবার তাদের গ্রে’প্তার করা হয়।


বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দক্ষিণ সুরমা থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) মো: মনিরুল ইস’লাম।
তিনি বলেন, গত ১৯ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় দক্ষিণ সুরমা’র হু’মায়ুন রশিদ চত্বর থেকে এক তরুণীকে চন্ডিপুল পৌছে দেওয়ার কথা বলে সিএনজি চালিত অটোরিকশায় তুলে চার যুবক। তবে চন্ডিপুলে না নামিয়ে তরুণীকে জো’রপূর্বক অ’জ্ঞাতস্থানে নিয়ে যায় তারা। সেখাতে তাকে পালাক্রমে ধ’র্ষণ করে। পরবর্তীতে ওই তরুণীকে রাত সাড়ে ৯টায় অটোরিকশায় করে লালাবাজারের পাশে নামিয়ে দিয়ে যায়।


এ ঘটনায় ২০ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ সুরমা থা’নায় মা’মলা করেন আ’ক্রান্ত তরুণীর বোন।
এরপর পু’লিশ দীর্ঘ ত’দন্ত ও তথ্য প্রযু’ক্তি ব্যবহার করে ঘটনার প্রকৃত র’হস্য উদঘাটনে সক্ষম হয়।
ওসি মো: মনিরুল ইস’লাম গত বৃহস্পতিবার ধ’র্ষণের ঘটনায় প্রত্যক্ষ ভাবে জ’ড়িত সুরমান খান (৩০) গ্রে’প্তার করে পু’লিশ। তাহাকে জিজ্ঞাসাবাদে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে একে একে সোহেল মিয়া (২৮) জামাল খাঁন (৩৫) ও সাইফুর রহমান বাবুল (২৩) কে গ্রে’প্তার করে পু’লিশ। তারা সকলেই সিলেটের ওসমানী নগরের বাসিন্দা।


জিজ্ঞাসাবাদে আ’সামিরা জানান, ওসমানীনগর থা’নাধীন চন্ডীত্তীয়র গ্রামের কালা চাঁদের তলার দক্ষিণ পাশে রুনি হাওড় নামক স্থানে খালি জমিনে নিয়ে ওই তরুণীকে পালাক্রমে ধ’র্ষণ করে তারা।
এরপর শুক্রবার গ্রে’প্তারকৃত সোহেল মিয়া, জামাল খাঁন (৩৫) ও সাইফুর রহমান বাবুল (২৩) মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ২য় আ’দালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানব’ন্দি প্রদান করেন।