সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের মর্মান্তিক দুর্ঘটনা স্বজনের লাশ দেখতে গিয়ে নিজেরাই লাশ  জৈন্তাপুরে শোকের ছায়া

সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের মর্মান্তিক দুর্ঘটনা স্বজনের লাশ দেখতে গিয়ে নিজেরাই লাশ  জৈন্তাপুরে শোকের ছায়া
ছবি: সংগৃহীত

সিলেট অফিস।। 03 মে, সোমবার।। স্বজনের মৃত্যু সংবাদ শুনে তার লাশ দেখতে যাওয়ার সময় দ্রুতগামী ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে দুই শিশুসহ একই পরিবারের পাঁচজন নিজেরাই লাশ হয়ে ফিরলেন। সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় তামাবিল মহাসড়কের ফেরিঘাট নামক স্থানে রোববার (২ মে) সকাল সাড়ে ৬টার দিকে মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনা ঘটে। একই পরিবারের পাঁচ সদস্যকে হারিয়ে শোকের সাগরে বাসছে স্বজন ও প্রতিবেশীরা। মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনায় জৈন্তাপুর উপজেলার সর্বত্র শোকের ছায়া বিরাজ করছে। এদিকে, সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত একই পরিবারের পাঁচ জনের দাফন সম্পন্ন হয়েছে তাদের গ্রামের বাড়িতে। 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, জৈন্তাপুর ফেরিঘাট এলাকায় একটি যাত্রীবাহী সিএনজিচালিত অটোরিকশা হঠাৎ মহাসড়কে উঠলে দ্রুতগামী একটি ট্রাক অটোরিকশাকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে চারজন ও হাসপাতালে নেওয়ার পথে একজনের মৃত্যু হয় 
জানা যায়, জৈন্তাপুর উপজেলার পাখিবিল গ্রামের একটি পরিবারের লোকজন একই উপজেলার ভাইটগ্রামে তাদের আত্মীয়র মৃত্যু সংবাদ শুনে সিএনজি যোগে যাওয়ার পথে গ্রামের সরু রাস্তা থেকে সিলেট তামাবিল মহাসড়কে উঠার সময় অসাবধনতার কারণে সিলেট থেকে আসা তামাবিলগামী ট্রাক অটোরিকশাকে চাপা দিলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। 
নিহতরা হলেন- পাখিবিল এলাকার মৃত আরব আলীর ছেলে হোসেন আহমদ (৩৫), জামাল মিয়ার স্ত্রী সাফিয়া বেগম (২৯), জামাল মিয়ার মেয়ে সাদিয়া (৭) ও ছেলে শাহাদাত (৫ মাস), মৃত হাফিজ মিয়ার স্ত্রী হাবিবুন্নেসা (৩৩)।
আহতরা হলেন- পাখিবিল এলাকার মৃত আরজান আলীর ছেলে জাকারিয়া ও জাকারিয়ার স্ত্রী হাসিনা বেগম। আহতদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
জৈন্তাাপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম দস্তগীর দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, যারা মারা গেছেন তারা একই পরিবারের ছিলেন। নিহতদের মধ্যে দুজন শিশু রয়েছে। 
এদিকে, সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত একই পরিবারের পাঁচ জনের  দাফন করা হয়েছে জৈন্তাপুরে তাদের গ্রামের বাড়িতে । রবিবার বাদ জোহর উপজেলার পাখিবিল তাদের গ্রামের মসজিদে নামাজে জানাজা শেষে দাফন সম্পন্ন হয়।