সিলেট-৩ আসনের নির্বাচনী প্রচারণা জমে উঠেছে

সিলেট-৩ আসনের নির্বাচনী প্রচারণা জমে উঠেছে
ছবি: সংগৃহীত

সিলেট অফিস।। মঞ্গলবার।। 13 জুলাই।। আগামী ২৮ জুলাই সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন। আর মাত্র ১৪দিন বাকী থাকায় জমে উঠেছে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। প্রার্থী সমর্থকদের পদভারে মূখরিত হয়ে উঠেছে পুরো নির্বাচনী এলাকা। করোনাকে পরোয়া না করে সর্বত্র চলছে গণসংযোগ, পথসভা ও সমাবেশ। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে প্রার্থী সমর্থকরা ভোটারদের বাড়ী বাড়ী গিয়ে ভোট চাচ্ছেন। পাশাপাশি আসনের প্রতিটি হাট-বাজার ভোর বেলা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত নির্বাচনী আড্ডার স্থানে পরিণত হয়েছে। 
সিলেট-৩ আসনে (দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ) আসনে উপ-নির্বাচন আগামী ২৮শে জুলাই। ৬ই জুলাই থেকে এ আসনে প্রার্থীদের আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর কথা থাকলেও প্রার্থী অনেক আগেই থেকেই ছিলেন মাঠে। তবে ১লা জুলাই থেকে দেশে কঠোর লকডাউন শুরু করা হলে নির্বাচন কমিশন থেকে ৮ই জুলাই পর্যন্ত নির্বাচনী প্রচারণা বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়। এরপর আরও এক সপ্তাহের লকডাউন বাড়ালেও নির্বাচন কমিশন থেকে নির্বাচনী প্রচার সংক্রান্ত কোনো নির্দেশনা আসেনি।
সিলেটের নির্বাচনী কর্মকর্তারা জানিয়েছেন- দ্বিতীয় দফা লকডাউন বাড়ানো হলেও নির্বাচন কমিশন থেকে প্রচারণা বন্ধ রাখার ব্যাপারে পরবর্তী কোনো আদেশ দেয়া হয়নি। এ কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে লোক সমাগম না ঘটিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালানো হচ্ছে।
জেলা প্রশাসন থেকে ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তারা স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে কি না- সেদিকে নজর রাখছেন। 
উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণকে সামনে রেখে সিলেটে নির্বাচনী প্রচারণায় এখন পর্যন্ত এগিয়ে রয়েছেন হাবিবুর রহমান হাবিব। গত ৮ই জুলাই শিডিউল করে তিনি নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে রুটিন মাফিক নির্বাচনী গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। নৌকা মার্কার সমর্থনে প্রতিটি এলাকায় নির্বাচনী কার্যালয় উদ্বোধন এবং মতবিনিময় করে প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। 
লকডাউনে ভোটের মাঠে কয়েকদিন অনুপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী আতিকুর রহমান আতিক। তবে- গত রবিবার থেকে আতিকও নির্বাচনী মাঠে সরব হয়েছেন।  ফেঞ্চুগঞ্জ ও দক্ষিণ সুরমার মোগলাবাজার এলাকায় তিনি নির্বাচনী গণসংযোগ ও প্রচারণা চালিয়েছেন। 
সরকারের বিধি-নিষেধ মেনেই জাতীয় পার্টির প্রার্থী আতিকুর রহমান আতিক প্রচারণা চালাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন তার নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য, দক্ষিণ সুরমা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব তাজউদ্দিন এপলু। তিনি জানিয়েছেন- ‘জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জে প্রচারণা চলছে। তবে- জাতীয় পার্টি লোক সমাগমের চেয়ে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ব্যক্তি পর্যায়ে গণসংযোগ বাড়িয়েছে। এছাড়া বর্তমান তথ্য-প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে ভার্চ্যুয়ালিও চলছে প্রচারণা।’ 
লকডাউনে নির্বাচন কমিশনের বিধি-নিষেধের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ও সাবেক এমপি শফি আহমদ চৌধুরী। তার নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্যরা জানিয়েছেন- শফি আহমদ চৌধুরী শতভাগ বিধি-নিষেধ পালন করছেন। তিনি গণ-জমায়েত না করে নিজে নিজে গ্রামে গ্রামে মানুষের মধ্যে যাচ্ছেন। নির্বাচনী প্রচারণার পাশাপাশি সবাইকে করোনা থেকে বাঁচতে সর্তকতামূলক ব্যবস্থাগ্রহণেরও আহŸান জানান। তিনি গত রবিবার থেকে বালাগঞ্জ, সোমবার দক্ষিণ সুরমার বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ ও মতবিনিময় করে যাচ্ছেন।