সিলেট-৩ আসনে জাতীয় পার্টি এমপি প্রার্থী হাজী তোফায়েল আহমদ

সিলেট-৩ আসনে জাতীয় পার্টি এমপি প্রার্থী হাজী তোফায়েল আহমদ
ছবিঃ সংগৃহীত

সিলেট প্রতিনিধি।। ০৬ এপ্রিল, মংগলবার।। 
জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য, পল্লী বন্ধু পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ও সিলেট জেলা পল্লী বন্ধু পরিষদের আহবায়ক হাজী তোফায়েল আহমদ সিলেট-৩ আসনে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী। 
সরকার দলীয় এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর মৃত্যুতে শূন্য ঘোষিত সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই উপ নির্বাচনে সিলেট-৩ (দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ) আসনে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হাজী তোফায়েল আহমদ। এই আসনে উপ-নির্বাচনে স্থানীয় আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, প্রবাসী সহ স্বতন্ত্র্য ৩ ডজন প্রার্থী নির্বাচনের লক্ষ্যে প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। 
আলাপকালে হাজী তোফায়েল আহমদ বলেন, নেতা বা নেতৃত্ব দেয়ার লক্ষ্যে নয়, জনগণের কাছে থেকে জনসেবা করাই আমার মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। জনসেবাকে ইবাদত হিসেবে গ্রহণ করে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান, সাবেক প্রেসিডেন্ট মরহুম পল্লী বন্ধু হুসাইন মুহম্মদ এরশাদ এর আর্দশ লালন করে দীর্ঘদিন যাবৎ দলের পক্ষে ও মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছি। দল থেকে আমাকে মনোনয়ন দিলে সিলেট-৩ আসনে আমি নির্বাচন করবো। তিনি বলেন, এই আসনে টানা ৩ বার জাতীয় পার্টির প্রার্থী এম.এ মুকিত খান লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছিলেন। সিলেট-৩ আসন জাতীয় পার্টির দুর্গ। যা অতীতেও ছিলো, এখনো আছে। আমার বিশ্বাস, গণমানুষের প্রতীক লাঙ্গল নিয়ে নির্বাচন করলে জনগণ আমাকে মূল্যায়ন করে তাদের খাদেম হিসেবে আমাকে সেবা করার সুযোগ দিবেন। 
হাজী তোফায়েল আহমদ প্রবাসে অবস্থান করলেও তার প্রতিষ্ঠিত ট্রাস্টের মাধ্যমে দীর্ঘ দিন ধরে সিলেট-৩ আসনের প্রত্যান্তাঞ্চলের বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর কল্যাণে সাহায্য-সহযোগিতা সহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছেন। 
উল্লেখ্য, সিলেট-৩ আসন সিলেট জেলার দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ এবং বালাগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ২২ হাজার ২৯৩জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১লাখ ৬২ হাজার ৮৬৮ জন। আর নারী ভোটার ১লাখ ৫৯ হাজার ৪২৫ জন।