সৈয়দপুরে এক বছরে তিন জন জননন্দিত পৌর পিতার মৃত্যু

সৈয়দপুরে এক  বছরে তিন জন জননন্দিত পৌর পিতার মৃত্যু

জাহিদুল হাসান জাহিদ।স্টাফ রিপোর্টার। মানুষের মৃত্যু হবে এইটা প্রকৃতির নিয়ম।পৃথিবী সৃষ্টি থেকে মানুষের জন্ম মৃত্যু ঘটছে। একজন নবজাতক শিশু যখন পৃথিবীতে আসে তখন সবাই আনন্দিত হয়ে হাসে।আবার সেই শিশু বড় হয়ে দেশ ও সমাজের জন্য ভালো কিছু করে মৃত্যু বরণ করলে মানুষ কাঁদে এবং তাহাকে চির জীবন স্বরণ করে।

তেমন’ই আলহাজ্ব বখতিয়ার কবির প্রবীন  সবার শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি। তিনি স্বাধীনতার পর প্রথম সৈয়দপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান। তাঁর সময় সৈয়দপুরে হয়েছে- সৈয়দপুর স্টেডিয়াম, টাউন হল, শহীদ ডাঃ জিকরুল হক পৌর পাঠাগার, কিল খানা, ট্রাক টার্মিনাল, কাজী হাট পানির ট্যাংক,মাছ ও মাংস মার্কেট সহ আরো অনেক কিছু ।

আলহাজ্ব বখতিয়ার কবির আওয়ামীলীগ রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। এছাড়া তিনি শিল্প সাহিত্য সংসদ সহ আরো অনেক সামাজিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

তিনি সৈয়দপুরে প্রথম হাতের লেখা সুন্দর করার জন্য পদক্ষেপ নেন। হাতের লেখা সুন্দর করার জন্য তিনি সৈয়দপুরের প্রতিটি বিদ্যালয়ে গিয়ে শিক্ষার্থীদের উৎসাহ দিতেন।এই গুনি মানুষটি আমাদের মাঝ থেকে চলে গেছেন। তবে তাঁর সৃষ্টির মাঝে বেঁচে থাকবেন চির জীবন।

নীলফামারীর সৈয়দপুরে বরণ্য ব্যক্তিত্ব, শ্রমিকের বলিষ্ঠ কন্ঠস্বর সৈয়দপুর পৌরসভার প্রথম মেয়র উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আখতার হোসেন বাদল। সৈয়দপুর উপজেলা ও পৌর সভার চেয়ারম্যান ও মেয়র এবং সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন সরকার ভজে । এই দুই জন বরণ্য রাজনৈতিক ব্যক্তির মৃতুতে মানুষ দারুণ শোকাহত হয়ে পড়ে।তাদের শোকের ক্ষত শুকাতে না শুকাতে সবাইকে ফাঁকি দিয়ে চলে যায় আর এক বরণ্য ব্যক্তিত্ব সৈয়দপুর পৌরসভা প্রতিষ্ঠাতা ১৯৭০ সালের সাংসদ মরহুম ডাঃজিকরুল হক’এর জ্যেষ্ঠ পুত্র সৈয়দপুর পৌরসভার প্রথম চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব বখতিয়র কবির।এই তিন জন ব্যক্তির শুন্যতা কোন দিন পূরণ হওয়ার নয়।