সৈয়দপুরে উপজেলা চেয়ারম্যান মোখছেদুল মোমিনের সংবাদ সম্মেলন

সৈয়দপুরে উপজেলা চেয়ারম্যান মোখছেদুল মোমিনের সংবাদ সম্মেলন

জাহিদুল হাসান জাহিদ।স্টাফ রিপোর্টার।২১ জুন,২০২১।। নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃমোখছেদুল মোমিন কে জড়িয়ে একটি দৈনিক পত্রিকায় অসত্য, মিথ্যা ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশ করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার(২১ জুন) সকাল ১০ টায় সৈয়দপুর নতুন বাবু পাড়া আদিবা কনভেনশন হলে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এসময় উপজেলা চেয়ারম্যান মোখছেদুল মোমিন উপস্থিত সাংবাদিকদের সামনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করে  বলেন,গত ১৯ জুন,২০২১ তারিখে প্রকাশিত দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় ১ম ও ২য় পৃষ্ঠার কলমে সারাদেশ রেলওয়ের ৪,১২৭ একর জমি বেহাত, সৈয়দপুরে দখলের মহোৎসব মন্ত্রণালয়ের তদন্ত প্রতিবিদনে উল্লেখ করা হয়েছে, উপজেলা চেয়ারম্যানসহ ভুমি-দস্যুদের কবলে ৫০০ কোটি টাকার সম্পত্তি জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনে তাহাকে জড়িয়ে যে, সংবাদ প্রচারিত হয়েছে তা অসত্য,কাল্পনিক এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

প্রকৃত তথ্য গোপন করে তার বিরুদ্ধে প্রকাশিত তদন্ত প্রতিবেদন ও দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় প্রচার করা হয় যে,সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোখছেদুল মোমিন অবৈধভাবে রেলওয়ের জমি দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ করেন। কেপিআই অন্তর্ভুক্ত সৈয়দপুর রেলওয়ে ওয়ার্কসপের ১২ নং গেটের সামনে প্রায় ২ একর জায়গায় তার পিতার নামে শামসুল হক মেমোরিয়াল একাডেমি এবং পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় নির্মাণ করেন। এছাড়া তিনি রেলওয়ে কোয়ার্টার সিলগালা তালা ভেঙ্গে বাংলো নং-টি/১৪ অবৈধ ভাবে বিক্রি করে দেন। এমন কি বাংলো এলকাায় অবৈধভাবে কয়েকটি বিল্ডিং নির্মাণ করার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

এসব উল্লেখিত মিথ্যা তথ্যের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি প্রকৃত সত্য তথ্য তুলে বলেন,সৈয়দপুর রেলের জায়গায় আমার নামে বহুতল ভবন নির্মাণ করা তো দুরের কথা সৈয়দপুর শহরে কোথাও আমার নামে কোন অবৈধ রেল জমি দখলের অস্তিত্ব পাবেন না।এই অভিযোগটি কাল্পনিক। আর রেলওয়ে ওয়ার্কসপের ১২ নং গেটের সামনে সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানা আধুনিকায়ন প্রকল্প চলাকালিন সময়ে তমা কন্ট্রাকশন কর্তৃক নির্মিত মালামাল ও কর্মচারীদের থাকা এবং অফিস পরিচালনার ঘর যা প্রকল্প শেষে পরিত্যক্ত হলে সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার সকল ট্রেড ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ শ্রমিক কর্মচারীর সন্তানদের  স্বল্প খরচে প্রাথমিক শিক্ষা(রেলওয়ে সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রাথমিক শাখা না থাকায়) নিশ্চিত করণে আমার বাবা প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা ও সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি প্রয়াত শামসুল হক এর নামে শামসুল হক মেমোরিয়াল একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেন।যা রেলওয়ের নিয়ম অনুযায়ী টোকেন ফি দিয়ে আবেদন করা হয়েছে।অথচ উল্লেখিত শামসুল হক মেমোরিয়াল একাডেমি ২ একর জায়গায় অবস্থিত সংবাদটি ভ্রান্তমূলক।প্রকৃত প্রতিষ্ঠানটি ৫০ শতক জায়গার উপর অবস্থিত।

পরিশেষে সাংবাদকিদের উদ্দেশে তিনি বলেন,আমি খারাপ হতে পারি তবে আমাকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে খারাপ না করার  জন্য আপনাদের অনুরোধ করছি।

সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন,সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃমহসিনুল হক,পৌর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃরফিকুল ইসলাম বাবু,সাধারণ সম্পাদক মোঃমোজাম্মেল হক,সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র রাফিকা আকতার জাহান বেবী,উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আজমল হোসেন সরকার,মহিলা ভাইচেয়ারম্যান সানজিদা বেগম প্রমূখ।