সৈয়দপুরে করোনা উপসর্গে মারা যাওয়া ব্যক্তির দাফন করলেন ওসি

সৈয়দপুরে করোনা উপসর্গে মারা যাওয়া ব্যক্তির দাফন করলেন ওসি

স্টাফ রিপোর্টার।। নীলফামারীর সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া অজ্ঞাত ব্যক্তির দাফন সম্পন্ন করেছে সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসনাত খান।

সোমবার(১৯ জুলাই) সকালে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় ওই অজ্ঞাত ব্যক্তি।পরে সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসনাত খান বিকেলে শহরের হাতিখানা কবরস্থানে তার দাফন-কাফন সম্পন্ন করেন। 

জানা যায়, সৈয়দপুর শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের নিয়ামতপুর নামকস্থানে গত ১২ জুলাই রাত সাড়ে ৮টার দিকে অসুস্থ্য অবস্থায় পড়ে ছিল ওই বৃদ্ধ। যা স্যোসাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। এ অবস্থায় নিয়ামতপুরের মাহবুব আলম নামে এক ব্যবসায়ী শ্বাষকষ্ট অসুস্থ্য অবস্থায় বৃদ্ধকে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করায়। দীর্ঘ সাত দিন পর সোমবার সকালে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

 সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসনাত খান বলেন, মৃত ব্যক্তির কাফন-দাফনের জন্য গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশক সৈয়দপুর উপজেলা শাখায় জানালে তারা সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ভারপ্রাপ্ত) সাথে আলোচনাক্রমে লাশ দাফনের কাজে অংশগ্রহন করি। গাউসিয়া কমিটির সদস্য মাওলানা আব্দুল ওয়াহেদ জানাজায় ইমামতি করেন। এরপর লাশ দাফনের কাজ সম্পন্ন করি।

 সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ওমেদুল হাসান সম্রাট জানান, অজ্ঞাত ওই বৃদ্ধ শ্বাষকষ্ট জনিত কারনে মারা গেছেন। তিনি বলেন, ওসির নির্দেশে মৃত ব্যাক্তির ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। যা মৃতের পরিচয় সনাক্তের কাজে ব্যবহার করা হবে।

 এ ব্যাপারে নীলফামারীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সৈয়দপুর সার্কেল) সারোয়ার আলম জানান, করোনাকালীন সময়ে পুলিশ কর্মকর্তার এমন দায়িত্ববোধ ও মানবিকতার কাজে সাধারন মানুষের কাছে পুলিশের ইতিবাচক দিক ফুটে উঠবে নিশ্চিত। তিনি এমন কাজে সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার প্রশংসা করেন।