সৈয়দপুরে কৃষকের বাড়ি ভাঙ্গনের মুখে- অনিয়মে পুকুর খনন সুষ্ঠ বিচারের দাবি

সৈয়দপুরে কৃষকের বাড়ি ভাঙ্গনের মুখে- অনিয়মে পুকুর খনন সুষ্ঠ বিচারের দাবি

জাহিদুল হাসান জাহিদ।। নীলফামারীর সৈয়দপুর কামারপুকুর ইউনিয়নের দলুয়াপাড়ার মৃত আবুল হোসেন কাজীর ছেলে অসহায় কৃষক মোঃ অফিজ উদ্দিনের বসতবাড়ির পাশে দেয়াল ঘেষে একই এলাকার মোঃহোসেন আলি পুকুর  খনন করায় তার বাড়িটির দেয়াল ফাটল সহ বাড়ির এক পাশ ডেবে গেছে  এবং বৃষ্টি হলে বাড়িটির এক পাশ  যে কোন সময় পুকুর গর্ভে বিলিন হওয়ার উপক্রম হয়েছে। অফিজ উদ্দিন বাড়িটি রক্ষা ও সুষ্ঠ বিচারের জন্য ইউনিয়ন পরিষদসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন।

অফিজ উদ্দিন অভিযোগ করে বলেন,আমি সারে সাত শতক জমিতে বাড়ি করার সময় সীমানা থেকে দেড় ফিট জায়গা ছেড়ে বাড়ি নির্মাণ করি।আমার বাড়ির পাশে একটি পুকুর রয়েছে। ঐ পুকুরের মালিক মোঃ হোসেন আলী সে কোন ধরনের নিয়ম না মেনে পুকুরের পাড় না রেখে অন্যায়ভাবে জোড় পূর্বক বাড়ির দেয়াল ঘেষে পুকুর খনন করায় আমার বাড়ির এক পাশের দেয়াল ফাটল ধরেছে এবং ইতিমধ্যে ল্যাট্রিনের দেয়াল ধসে গেছে। এব্যাপারে কামারপুকুর ইউপি চেয়ারম্যান বরাবর বিচার চেয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করি। অভিযোগের পরিপেক্ষিতে চেয়ারম্যান দুইজন গ্রাম পুলিশ ও ইউপির একজন আমিন এবং আমার একজন আমিন দিয়ে জমির সীমানা নির্ধারণের আদেশ দেন। আমি যে দেড় ফিট জায়গা ছেড়ে বাড়ি নির্মাণ করেছি তা সে সময় প্রমাণিত হয় কিন্তু মোঃ হোসেন আলীর পুকুরের পাড়ের কোন চিহৃ না পেলে এলকাবাসির উপস্থিতে আমিনদ্বয় জমির সীমানা নির্ধারণ করেন।কিন্তু হোসেন আলী ও তার ছেলে এই সীমানা মাপ মানে না বলে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ দিয়ে সভা স্থল ত্যাগ করে। যেহেতু ইউপি পরিষদের দেয়া সিন্ধান্তকে বিবাদীদ্বয় অমান্য করেছে,এই মর্মে ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার সরকার লিখিত পত্রে সুপারিশ করেন যে বিবাদীর বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে সুবিচারের জন্য আমি ব্যবস্থা নিতে পারবো বলে জানান। এদিকে আমি ও পরিবারের সবাই দারুণ দুশ্চিন্তার মধ্যে রয়েছে,কষ্টের অর্থে গড়া বাড়িটি ভেঙ্গে গেলে তাদের সবাইকে খোলা আকাশের নিচে থাকতে হবে।তাই বাড়িটি রক্ষার্থে অফিজ উদ্দিন সকলের কাছে সুষ্ঠ বিচারের দাবী করেন।

সরজমিনে গিয়ে  অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। তবে এ ব্যাপারে হোসেন আলীর কাছে জানতে চাইলে সে বলেন,হাই কোর্ট করলেও এক ইঞ্চি জায়গা ছাড়বে না বলে সে জানান।