সৈয়দপুর ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠাতা আলীম এমপি’র ৬ষ্ঠ তম মৃত্যু বার্ষিকী পালন

সৈয়দপুর ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠাতা আলীম এমপি’র ৬ষ্ঠ তম মৃত্যু বার্ষিকী পালন

স্টাফ রিপোর্টার।। নীলফামারী সৈয়দপুর ছাত্র লীগের প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য প্রয়াত আলিম উদ্দিন এর ৬ষ্ঠ মৃত্যু দিবস পালন করা হয়েছে। সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লগি, অঙ্গ সংগঠন ও পারিবারিকভাবে দিবসটি যতাযোগ্য মর্যাদায় পালন করেন ।

দিবসটি উপলক্ষে আজ (১৮ আগস্ট) সকালে শহরের হাতীখানা গোরস্থানে তাঁর কবর জিয়ারত করা হয়। মরহুমের শহরের বাসা নতুন বাবু পাড়ায় কুরআন খানি, মিলাদ মাহুিফল ও গরীব মিছকিনদের খাওয়ানো হয়।

অপরদিকে সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ দিবসটি উপলক্ষে দিনব্যাপী পার্টি অফিসে ফাতিহা পাট, মিলাদ মাহফিল ও রাতে আলোচনা সভার আয়োজন করেন। প্রধান অতিথি হিসেবে ইপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি নীলফামারী-২৩, মরহুমের সহধর্মিনী রাবেয়া আলিম।

বক্তব্য রাখেন, সৈয়দপুর উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোখছেদুল মোমিন, সাধারণ সম্পাদক মহসিনুল হক মহসিন, পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম বাবু ,সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক, আওয়ামী লীগ নেতা ও মরহুমের সন্তান ইঞ্জিনিয়ার রাসেদুজ্জামান রাসেদসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

প্রসঙ্গত, তিনি ছিলেন সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, জাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এবং সৈয়দপুর ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। ছিলেন মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। রাজনৈতিক পরিচয়ের বাহিরেও অনেক পরিচয়ে তিনি পরিচিত ছিলেন।

১৯৬৫ সালে সৈয়দপুর টেকনিক্যাল স্কুল কোন ভাষায় চালু হবে এবং কায়দে-আজম কলেজে বাংলা মিডিয়ামে পরীক্ষা দেয়াকে কেন্দ্র করে বাঙালী-বিহারী দাঙ্গা হাঙ্গামায় জন্ম নেয় সংগ্রামীদের সাহসী পাঠশালা “সৈয়দপুর ছাত্রলীগ”।

১৯৬৬ সনের ১ জানুয়ারি, রোববার, সকাল ১০টায় শিল্প সাহিত্য সংসদের হলরুমে চিরিরবন্দরের মাহাতাব সরকার,দিনাজপুরের আমজাদ এমপি ও মাহমুদুর রহমানের উপস্থিতিতে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা হয়। সভাপতি নির্বাচিত হন আলিম উদ্দিন।

১৯৭০ সালে ঢাকায় অবস্থানকালে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতাদের সাথে ঘনিষ্ঠতা বাড়তে থাকে। ঢাকার রাজপথে মিছিলে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছিলেন তিনি।

১৯৭১ সালের ৭ মার্চ ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে জাতির জনকের দেয়া স্বাধীনতার ভাষণে সরাসরি অংশগ্রহণ করেছিলেন তিনি। এ ছাড়া ২৩ মার্চ ৬ ও ১১ দফা ভিত্তিক গণআন্দোলনে সৈয়দপুরের স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সহিত জোড়ালো ভূমিকা রাখেন আলিম উদ্দিন। ফলশ্র““তিতে সরকার সান্ধ্য আইন জারি করেন।