সৈয়দপুরে নিচু কলোনীর সহজ কোরআন শিক্ষার কার্যক্রম নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র

সৈয়দপুরে নিচু কলোনীর সহজ কোরআন শিক্ষার কার্যক্রম নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র
ছবিঃ সংগৃহীত

জাহিদুল হাসান জাহিদ।স্টাফ রিপোর্টার।। নীলফামারীর সৈয়দপুরে নিচু কলোনীর মসজিদ ভিত্তিক গণ শিক্ষার কার্যক্রম সহজ কোর আন শিক্ষার কার্যক্রম বন্ধের ষড়যন্ত্র করছে কয়েকজন ব্যক্তি, মাওলানা মো.মিজানুর রহমান এই অভিযোগ করেন।

জানা যায়,বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া মসজিদ ভিত্তিক গণ শিক্ষা ধর্ম মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সারা দেশে পরিচালিত হচ্ছে।তার’ই একটি প্রাক-প্রাথমিক সহজ কোর আন শিক্ষার একটি শাখা নিচু কলোনী জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা মো.মিজানুর রহমান মিজান ২০১৭ সালে নীলফামারী ইসলামি ফাউন্ডেসনে আবেদনের মাধ্যমে পরীক্ষা দিয়ে শিক্ষক নিয়োগ প্রাপ্ত হয়ে নিচু কলোনীতে শিশুদের সহজ কোর আন শিক্ষার কার্যক্রমটি নিয়ে আসেন। মাওলানা মিজানুর রহমান সহজ কোর আন শিক্ষার কার্যক্রমটি যথা নিয়মে নিষ্ঠার সঙ্গে শিশুদের কোর আন শিক্ষা দিচ্ছেন।গণ শিক্ষার পরিপত্র অনুযায়ী এই কার্যক্রমটি মসজিদ,মাদ্রাসা,মক্তব,খানকা শরীফের যে কোন স্থানে আরবি শিক্ষার পাঠদানের কথা উল্লেখ রয়েছে।সেই অনুযায়ী নিচু কলোনীর শাখাটি মাওলানা মিজানুর রহমান প্রথম এক বছর মসজিদে এবং পরবর্তীতে জাবালে নুর মাদ্রাসায় পঁয়ত্রিশ জন ছেলে মেয়েকে নিয়মানুযায়ী সপ্তাহে দুই দিন সহজ কোর আন শিক্ষা দিচ্ছেন। এই সহজ কোর আন শিক্ষা পর্যবেক্ষণের জন্য পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটিও রয়েছে।সেই সঙ্গে যে সব শিক্ষার্থীরা আরবি শিখছে তাদের অভিভাবকরা সহজ কোর আন শিক্ষার কার্যক্রমে সন্তুষ্টির কথা জানান।অথচ এই কোমলমতি শিশুদের সহজ কোর আন শিক্ষার কার্যক্রম বন্ধ করতে কিছু ব্যক্তি নীলফামারী ইসলামী ফাউন্ডেসন ডিজি বরাবর মৌখিক মিথ্যা অভিযোগ করেন যে,শিক্ষক মিজানুর রহমান ছাত্রদের পড়ান না এবং সে ছাত্রদের পড়ানোর বিনিময়ে টাকা নেন।এ সব মিথ্যা অভিযোগে ডিজি কার্যালয় থেকে কয়েক জন কর্মকর্তা তদন্ত করেন।তদন্ত কর্মকর্তারা ঐসব মিথ্যা অভিযোগের কোন সত্যতা পায়নি এমনটি জানান মাওলানা মিজানুর রহমান।

এই ব্যাপারে বেশ কয়েকজন অভিভাবক জানান,এই সহজ কোরআন শিক্ষার কার্যক্রমটি যেন ষড়যন্ত্র করে বন্ধ করতে না পারে সেই জন্য তারা সবাই মিলে ডিজির বরাবর লিখিত ভাবে জানাবেন।