সৈয়দপুরে ‘পাতাকুড়ি’ পার্কে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ, ম্যানেজার গ্রেফতার

সৈয়দপুরে ‘পাতাকুড়ি’ পার্কে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ, ম্যানেজার গ্রেফতার
ছবি সংগৃহিত

স্টাফ রিপোর্টার। নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের বিনোদন কেন্দ্র ‘পাতাকুড়ি’ পার্কের ম্যানেজার আব্দুল আউয়াল শাহকে (৫৫) গ্রেফতার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ আগস্ট) সন্ধা পৌনে ৮ টায় পার্কের গেট থেকে গ্রেফতার করে শুক্রবার (২৬ আগস্ট) সকালে তাকে জেল হাজতে পাঠিয়েছে সৈয়দপুর থানা পুলিশ।

পার্কের ভিতরের আবাসিক ভবনের একটি কক্ষে এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ করার ক্ষেত্রে ধর্ষকের অন্যতম সহযোগিতাকারী হিসেবে অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এ সংক্রান্ত মামলার প্রেক্ষিতে ঘটনার সাথে তার প্রত্যক্ষ সম্পৃক্ততা পাওয়ায় অধিকতর তদন্তের স্বার্থে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি পাতাকুড়ি পার্কে বান্ধবীসহ বেড়াতে আসে সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের অসুরখাই গ্রামের কলেজ ছাত্রী লিজা (১৭)। এসময় ছবি তোলার সূত্র ধরে পরিচয় হয় রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলার রহিমাপুর গ্রামের আজগার আলী শাহ’র ছেলে শাহীন শাহ (১৯) এর সাথে। সেদিন কৌশলে লিজার মোবাইল নম্বর নেয় শাহিন শাহ।

তিনদিন পর শাহিন মোবাইল করে লিজাকে দেখা করতে বলে। এতে রাজি না হলে তার কাছে লিজার যেসব ছবি আছে সেগুলো ইন্টারনেটে ছেড়ে দিয়ে ভাইরাল করা হবে বলে জানায় শাহিন। এমতাবস্থায় ভীত হয়ে ১৫ ফেব্রুয়ারি লিজা পাতাকুড়ি পার্কে আসলে শাহিন তাকে সরাসরি পার্কের ভিতরের আবাসিক ভবনের একটি কক্ষে নিয়ে যায়।

শাহিন আগে থেকেই বুকিং করেছিল তাই তারা রুমে ঢোকামাত্রই দরজা বন্ধ করে বাইরে তালা লাগিয়ে দেয় পার্ক কর্তৃপক্ষ। সেখানে লিজাকে ধর্ষণ করে শাহিন। এসময় উলঙ্গ অবস্থার  ভিডিও করেছে সে। লিজা চিৎকার করলেও কেউ এগিয়ে আসেনি। বাধ্য হয়ে ঘন্টা খানিক পর লিজা নিরবেই বেড়িয়ে আসে এবং তাৎক্ষণিক বিষয়টা বাবা মাকে জানায়।
পরদিন ১৬ ফেব্রুয়ারি সৈয়দপুর থানায় মামলা দায়ের করে লিজার মা। এর প্রেক্ষিতে ঘটনার রাতেই শাহিন শাহ কে গ্রেফতার করে পুলিশ। লিজার ডাক্তারি পরীক্ষাও সম্পন্ন হয়। মামলার তদন্তে বেড়িয়ে আসে ধর্ষণ ঘটনার সাথে পার্ক কর্তৃপক্ষের যোগসাজশের বিষয়। তারই সূত্র ধরে পার্কের ম্যানেজারের সম্পৃক্তা নিশ্চিত হওয়ায় অবশেষে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার পাতাকুড়ি বিনোদন কেন্দ্রের ম্যানেজার আব্দুল আউয়াল শাহ নীলফামারী সদর উপজেলার সংগলশী ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নং ওয়ার্ডের মেম্বার এবং দীঘলডাঙ্গি গ্রামের মৃত নেয়ামতুল্লাহ শাহ’র ছেলে। তিনি সাবেক বিডিআর সদস্য। কিছুদিন হলো সৈয়দপুরের বিশিষ্ট ঠিকাদার ও উপজেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীনের। তাঁর পাতাকুড়ি পার্কটি লিজ নিয়ে ব্যবসা করে আসছেন আউয়াল শাহ।

 মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) মতিয়ার রহমান আজকের পত্রিকাকে জানান, মামলার তদন্তে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণে সহায়তাকারী হিসেবে বিনোদন কেন্দ্রের ম্যানেজার আব্দুল আউয়াল শাহ ও একজন কেয়ারটেকারের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। ফলে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পাতাকুঁড়ি বিনোদনকেন্দ্রের ম্যানেজারকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এ বিষয়ে সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম জানান, ধর্ষণের ঘটনায় সহায়তাকারী হিসেবে ওই পার্কের একজন কেয়ারটেকার রয়েছে। তাঁকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এই ঘটনা তদন্তে আরও কোনো ব্যক্তির সংশ্লিষ্টতা পেলে তাঁকেও আইনের আওতায় নেওয়া হবে।