সৈয়দপুর পৌরসভার বাজেট, প্রশ্নবিদ্ধ উন্নয়ন

সৈয়দপুর পৌরসভার বাজেট, প্রশ্নবিদ্ধ উন্নয়ন

জাহিদুল হাসান জাহিদ।স্টাফ রিপোর্টার।৩০জুন,২০২১।। সৈয়দপুর পৌরসভার শত কোটি টাকার বেশি বাজেট ঘোষণা করা হয় প্রতি বছর। বিগত বাজেট গুলো বাস্তবায়ন কতটুকু হয়।এসব তথ্য নতুন অর্থ বছরের বাজেট ঘোষণায় বলা হয় না।এই জন্য শহরের উন্নয়ন হওয়া না হওয়ার বাস্তব চিত্র ফুটে ওঠে ২০২১-২০২২ অর্থ বছর ২৮ জুন বাজেট  আলোচনায় ১৫টি ওয়ার্ড কাউন্সিলরের বক্তব্যে। তারা বলেন, এলাকার রাস্তা,ড্রেন সহ কোন উন্নয়ন হয়নি বিগত সময়ে। তবে এক, দুইজন কাউন্সিলর বাদে সব কাউন্সিলরের ভাষ্য ছিল একই ধরনের।বর্তমান যে ২০ জন কাউন্সিলর রয়েছেন। তাদের মধ্যে প্রায় অর্ধেক কাউন্সিলর দুই-তিন বারের নির্বাচিত কাউন্সিলর। নতুন পুরাতন কাউন্সিলরা যে ভাবে তাদের এলাকার সমস্যার কথা তুলে বক্তব্য দিয়েছে। এতে ধরে নেওয়া যায় মরহুম আমজাদ হোসেন সরকার ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের ১৪১ কোটি টাকার উন্নয়নের যে বাজেট ঘোষণা করা হয়েছিল। তা কিন্তু কাউন্সিলরদের বক্তব্যের মাধ্যমে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে।কাউন্সিলরদের বক্তব্য অনুযায়ী বিগত অর্থ বছররে দেয়া বাজেটে রাস্তা ড্রেন সহ জনকল্যাণ মুলক খাদে বরাদ্দকৃত অর্থ প্রকৃত ভাবে বাস্তবায়ন হয়েছে কি না এটি এখন প্রশ্নবিদ্ধ।তাদের বক্তব্য বাজেটের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন না হওয়ারই বর্হিপ্রকাশ হিসেবে ধরে নেওয়া যায়।এখন প্রশ্ন যদি বাজেটের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন না হয়। তা হলে কেন প্রতি বছর এতো বড় অংকের বাজেট ঘোষণা করা হয়। বাজেট বাস্তবায়নে কি শুভঙ্করের ফাঁকি ছিলো,না কি  শস্যাতে ভূত রয়েছে।

১৯৫৮-২০২১ সালের ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত সৈয়দপুর পৌরসভার পৌর চেয়ারম্যান বা মেয়র এর দায়িত্বে ছিলেন পুরুষ।সেই সময় থেকে যাহারা চেয়ারম্যান বা মেয়র ছিলেন এর মধ্যে বেশি সময় ধরে ক্ষমতায় ছিলেন মরহুম আমজাদ হোসেন সরকার।তিনিই সব থেকে বেশী বাজেট ঘোষণা করেছেন।তার সময় দৃষ্টিনন্দন সড়ক হয়েছে। দৃষ্টিনন্দন সড়কটি নির্মিত হয়েছে এডিপি ও বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়ণে।

 অপর দিকে ঘোষিত বাজেটের টাকায় আধুনিক সবজি বাজার নির্মাণ করেন সৈয়দপুর পৌরসভার প্রথম মেয়র মরহুম আখতার হোসেন বাদল।সেই সময় তারই পৌর পরিষদের কাউন্সিলররা দারুণ ভেল্কিবাজি দেখিয়েছিল।এটি অবশ্যই শহরবাসীর মনে আছে।

বর্তমানে তারই সহধর্মীনি সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র রাফিকা আকতার জাহান বেবী। সৈয়দপুরের ইতিহাসে প্রথম একজন নারী মেয়র।তার ক্ষমতায় বসার সময় মাত্র তিন মাস।এই সময়ের মধ্যে একজন সর্ম্পূন নতুন মানুষ, মহামারি করোনাকালীন সময়ে ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের ১৩১ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করেছেন। নতুন হিসেবে যে বাজেট ঘোষণা করেছেনে এতে কিছু ভূল বিভ্রান্তি থাকা স্বাভাবিক।তবে নতুন হিসাবে তিনি যে সৈয়দপুর শহরকে মডেল শহরে রুপান্তরিত করার যে ঘোষণা দিয়েছেন।এই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ণ করাই হবে  তাহার কাছে সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ।