সৈয়দপুরে পুলিশ কর্মকর্তাকে পেটানোর অপরাধে ব্যবসায়ী পুত্র আটক

সৈয়দপুরে পুলিশ কর্মকর্তাকে পেটানোর অপরাধে ব্যবসায়ী পুত্র আটক
ছবি সংগৃহীত

জাহিদুল হাসান জাহিদ।স্টাফ রিপোর্টার।২৪জুলাই,২০২১।। নীলফামারী সৈয়দপুরে করোনা প্রতিরোধে কঠোর বিধিনিষেধ অমান্য করে ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে বের হলে ভ্রাম্যমান আদালতকে জরিমানার টাকা পরিশোধ না করেই এক ব্যবসায়ীর ছেলে তার গাড়ি নিয়ে সটকে পড়েন। ধাওয়া করে পুলিশ কর্মকর্তা তাঁকে আটক করলে সেই ব্যবসায়ীর পুত্র ক্ষিপ্ত হয়ে গাড়ি থেকে নেমে ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে মারধর করে পিটিয়ে তাঁর পোশাক ছিঁড়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়।।

শুক্রবার(২৩ জুলাই) রাত সাড়ে আটটার দিকে সৈয়দপুরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলতাফ হোসেনের বড় ছেলে আতিফ আলতাফ (২৮) সৈয়দপুর থানার পরিদর্শক আতাউর রহমান(তদন্ত)কে মারধরের ঘটনা ঘটায়।

                                                                     

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সৈয়দপুরের সেনানিবাস এলাকার সিএসডি মোড়ে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালাচ্ছিলেন আতিফ আলতাফ। এ সময় সেখানে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা তাঁর গতিরোধ করেন। বিধিনিষেধ অমান্য করার অভিযোগে ঘটনাস্থলেই তাঁকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সৈয়দপুর উপজেলার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রমিজ আলম তাঁকে ৫০০ টাকা জরিমানা করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জরিমানা পরিশোধ না করেই গাড়ি নিয়ে চলে যান আতিফ।

পুলিশের গাড়ি নিয়ে এক কিলোমিটার পথ ধাওয়া করে আতিফকে শহরে বঙ্গবন্ধু সড়কের নেসকো অফিসের কাছে ধরে ফেলে পুলিশ। এ সময় গাড়ি থেকে নেমে কর্তব্যরত পরিদর্শক আতাউর রহমানের গায়ে হাত তোলেন আতিফ। ওই পরিদর্শককে পিটিয়ে পোশাক ছিঁড়ে দেওয়া হয়।

সৈয়দপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আতাউর রহমানের সঙ্গে ঘটনাস্থলে কথা বললে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। এ সময় তাঁর পোশাক ছেঁড়া দেখতে পাওয়া যায়।

সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসনাত খান জানান, ভ্রাম্যমাণ আদালত অমান্য, পুলিশের গায়ে হাত তোলা ও লকডাউন ভাঙার মতো একাধিক অপরাধ সংঘটিত করেছেন আতিফ। তাঁকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা করা হবে।