সৈয়দপুরে ১০০ শয্যা হাসপাতালের বৈদ্যুতিক তার চুরি মোমবাতির আলোয় চলছে চিকিৎসা সেবা

সৈয়দপুরে ১০০ শয্যা হাসপাতালের বৈদ্যুতিক তার চুরি মোমবাতির আলোয় চলছে চিকিৎসা সেবা

স্টাফ রিপোর্টার।। সৈয়দপুরে ১০০ শয্যা হাসপাতালের বিদ্যুৎ সংযোগ ক্যাবল চুরি হয়েছে। পুরো হাসপাতাল অন্ধকারে। টিকেট কাউন্টার, চিকিৎসকের কক্ষ,জরুরী বিভাগের চিকিৎসা চলছে মোমবাতি মোবাইলের আলো দিয়ে।

শুক্রবার(১৭ জুন) চুরি ঘটনাটি ঘটে। দেখাগেছে ৪ বছরের ছোট বাচ্চার ঠোঁটের অভ্যন্তরে কেটে গেলে তার সেলাই দেওয়া হচ্ছে মোবাইলের আলো জ্বালিয়ে।এমনিতে নাই বিদ্যুৎ তারপর  প্রচন্ড গরম। এতে চিকিৎসক ও রোগিরা দারুণ দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে।বিদ্যুৎ না থাকায় জরুরী অপারেশন ও অক্সিজেন সাপ্লাই বন্ধ আছে, শ্বাস কষ্ট রোগীদের জরুরী ন্যাবুলাইজার, অক্সিজেন দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।বন্ধ হয়েগেছে এক্স রে বিভাগ । এ ধরনের হাজারো সমস্যায় ভুগছে সৈয়দপুরে ১০০ শয্যার বহি: বিভাগ ও ভর্তি রোগীরা।

তথ্য সুত্রে জানা গেছে, এই তার চুরির ঘটনা বেশ কয়েকবার ঘটেছে। যতবারই নতুন তার লাগানো হয়, ততবারই আবার চুরির ঘটনা ঘটে।

একটি সুত্র বলে স্থানীয় চোরেরা তারা দিনের বেলা রোগী সেজেঘোরাঘুরি করে আর রাতের বেলা রোগীদের মোবাইল, নগদ টাকা চুরি করে । হাসপাতালের মুল্যবান সামগ্রী চুরি করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। কারা এর সাথে জড়িত তারা ধরা ছোঁয়ার বাহিরে থাকছে।

এ ছাড়াও অভিযোগ পাওয়া য়ায়, এই হাসপাতালে ঔষধ কোম্পানীর বিভিন্ন প্রতিনিধিদের কাছে চাঁদা বাজরা ভিন্ন ভাবে চাঁদা দাবী করে হয়রানি করার পরিপ্রেক্ষিতে তাদের ভিজিট কার্যক্রম অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ রেখেছে । ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধিদের সংগঠন "ফারিয়ার"" সাধারন সম্পাদক সত্যতা স্বীকার করেছেন।

সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালের আর এম ও মো মোহাইমিনুল ইসলাম হাসপাতালের কেন্দ্রীয় বৈদ্যুতিক সঞ্চালন লাইন চুরির অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আসামীদের ধরতে আইনগত ব্যবস্হা নেওয়া হচ্ছে।