হাটহাজারীতে শোক দিবসের অনুষ্ঠানে হতাহতের ঘটনা

হাটহাজারীতে শোক দিবসের অনুষ্ঠানে হতাহতের ঘটনা
ছবিঃ সংগৃহীত

হাটহাজারী প্রতিনিধি।। ১৫ আগস্ট, রবিবার।। জাতীয় শোক দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আওয়ামিলীগের দুগ্রুপের হাতাহাতিতে একজন আহত। ১৫ আগষ্ট রোববার সকালে হাটহাজারী  উপজেলার ১০নং উত্তর মাদার্শা ইউনিয়নের  মাদার্শা বহুমূখি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, জাতীয় শোক দিবস উদযাপন উপলক্ষে  আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা মাদার্শা বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে  বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে  স্থানীয় ১০উত্তর মাদার্শা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মন্জুর হোসেন মাসুদের সাথে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা অসীম মল্লিকের তর্কাতর্কি হলে  অসিম মল্লিক চেয়ারম্যান মাসুদকে ঘুষি মারে। এসময় অনুষ্ঠানে আগত নেতাকর্মীরা  উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা অসীমকে কিলঘুষি মারে । এতে অসিম মল্লিকের নাক দিয়ে রক্তপাত হলে স্থানিয়রা এ ঘটনায় চেয়ারম্যান মাসুদ  আহত হলেও অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় অসীম মল্লিককে হাটহাজারী স্বাস্হ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়।

হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন  অসীম মল্লিক সাংবাদিকদের বলেন, বঙ্গবন্ধু প্রতিকৃতিতে ফুল দেওয়ার পর উত্তর মাদার্শার চেয়ারম্যান মাসুদ আমাকে ধাক্কা দেয় এবং অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে। চেয়ারম্যান ও তার অনুসারীরা আমাকে মেরে রক্তাক্ত করে মাটিতে ফেলে দেয়। এক পর্যায়ে স্থানীয় নেতৃবৃন্দরা আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সৈয়দ মোহাম্মদ ইমতিয়াজ শামীম বলেন, দুপুরে অসীম মল্লিক নামের এক ব্যক্তি গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসা নিতে আসেন। তার নাক দিয়ে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মনজুর হোসেন চৌধুরী মাসুদ জানান, এটা পূর্ব পরিকল্পিত।  এলাকায় আমার জনপ্রিয়তা থাকায় কিছু ব্যক্তি ঈর্ষান্বিত হয়ে আমার  সুনাম ক্ষুন্ন করার জন্য দীর্ঘদিন ধরে পায়তারা করে আসছে। আজকে বিশেষ দিবসের অনুষ্ঠানে এর বহিঃপ্রকাশ। আমি নিজেও আহত হয়েছি।
এব্যাপারে হাটহাজারী থানার অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম বলেন,এব্যাপারে আমি কিছুই জানিনা।