গ্রাম থেকে শহরে সুষম উন্নয়নে বিশ্বাস করে সরকার: সমবায় দিবসে প্রধানমন্ত্রী

গ্রাম থেকে শহরে সুষম উন্নয়নে বিশ্বাস করে সরকার: সমবায় দিবসে প্রধানমন্ত্রী
ছবিঃ সংগৃহীত

মোহাম্মদ হাসান, স্টাফ রিপোর্টার, ০৭ নভেম্বর, ২০২০।।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, গ্রামকে বাদ রেখে শুধু শহর উন্নত করতে চাইলে দেশের উন্নয়ন সম্ভব হবে না। সমবায় থেকে যেন প্রত্যেকে লাভবান হয় তা নিশ্চিত করতে হবে। আওয়ামী লীগ সরকার সব সময়েই গ্রাম থেকে শহরে সুষম উন্নয়নে বিশ্বাস করে।

আজ ৭নভেম্বর শনিবার সকাল সাড়ে ১০ঘটিকায় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ৪৯তম জাতীয় সমবায় দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র এ আয়োজিত অনুষ্ঠানে জাতীয় সমবায় পুরস্কার ২০১৯ প্রদানসহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে এসব কথা বলেন। 

তিনি বলেন, সংবিধানে জাতির পিতা সমবায়ের কথা বলে গেছেন। বহুমাত্রিক সমবায়ের কথা বলেছেন। একা খাবো- এই মানসিকতা পরিহার করে নিজে খাবো সকলকে নিয়ে খাবো এই মানসিকতা নিয়ে আপনারা কাজ করুন।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন,  নারীরা এগিয়ে এলে দুর্নীতি অনেকটা কমে যাবে। পাশাপাশি তাদের পরিবারও অনেক লাভবান হবে। বর্তমান যুগে ডিজিটাল বাংলাদেশে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে আমরা আধুনিক প্রযুক্তিজ্ঞানসম্পন্ন ব্যবস্থাপনা গড়ে তুলে সমবায়ের মাধ্যমেই আমাদের দেশের উন্নয়ন করতে পারব।’ আর এ জন্য দক্ষ সমবায়ীদের প্রশিক্ষণের ওপরও তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

শেখ হাসিনা বলেন, সামনে শীত আসছে। শীতে করোনার প্রকোপ কিছুটা বাড়ে, সেখান থেকে নিজেদের সুরক্ষিত রাখতে হবে। আমরা যে স্বাস্থ্য নির্দেশনা দিয়েছি সেগুলো মেনে চলতে হবে। ইউরোপের অনেক দেশ কিন্তু লকডাউন ঘোষণা করেছে, আমরা এখনো করোনা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছি।

সমবায় আদর্শ ও দর্শনে যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে সমবায় আন্দোলনকে আরও গতিশীল ও সমবায়ীদের মধ্যে আরও ভাল কাজ করার এবং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার ক্ষেত্রে আগ্রহ, উদ্দীপনা এবং প্রতিযোগিতা মনোভাব সৃষ্টিতে ২০১২ সাল থেকে ১০ ক্যাটাগরিতে ( কৃষিভিত্তিক/সার্বিক গ্রাম উন্নয়ন, সঞ্চয় ও ঋণদান, দুগ্ধ সমবায়, মহিলা সমবায়,
বহুমুখী সমবায়, মৎস্য সমবায়, মুক্তিযোদ্ধা সমবায়, বিত্তহীন, ভূমিহীন সমবায়, যুব, বিশেষ শ্রেণী, তাঁতিসহ অন্যান্য পেশাভিত্তিক সমবায়, কর্মকর্তা/কর্মচারী, পরিবহন শ্রমিক কর্মচারী সমবায়)  "জাতীয় সমবায় পুরস্কার" প্রদান করা হচ্ছে। 

সমবায় পুরস্কার হিসেবে ১৮ ক্যারেটের সোনা দিয়ে তৈরি ১০ গ্রাম ওজনের একটি পদক এবং একটি সন্মাননাপত্র প্রদান করা হয়।

এবারের জাতীয় সমবায় পুরস্কার-২০১৯ এর জন্য মনোনীত হয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশ কো-আপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড (পলওয়েল)। "কর্মকর্তা-কর্মচারী, পরিবহন শ্রমিক" সমবায় শ্রেণিতে শ্রেষ্ঠ সমবায় সমিতি হিসেবে এ পুরস্কার গ্রহণ করেছেন বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ড. বেনজির আহমেদ। 

এ ছাড়াও কৃষি, দুগ্ধ, মৎস্য, যুবসহ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ১০ প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে জাতীয় সমবায় পুরস্কার ২০১৯ এ ভূষিত করা হয়।