চরফ্যাশনে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়ি ষোড়শী প্রেমিকার অনশন

চরফ্যাশনে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়ি ষোড়শী প্রেমিকার অনশন
ছবিঃ সংগৃহীত
আজকাল বাংলা প্রতিনিধি, ভোলা, ১৪ অক্টোবর ২০২০।।
বিয়ের দাবিতে আজ (১৪ অক্টোবর) বুধবার সকাল সাড়ে ৬টায় প্রেমিকের বাড়ি অনশন করছেন এক প্রেমিকা। ঘটনাটি ঘটেছে ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলায় দক্ষিণ আইচা থানার চরমানিকা ইউনিয়নে ৮নং ওয়ার্ড রুহুল আমিন চেয়ারম্যান বাজারের পাশে চৌধুরী বাড়িতে।
 
সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, ১৪ অক্টোবর বুধবার সকাল থেকে  ৮নং ওয়ার্ড রফিক চৌধুরীর বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অনশন করে চলছে শশীভূষণ থানার হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মোঃ মনিরের মেয়ে আকিতা (১৪)।
 
অনশনরত বাড়িতে থাকাকালীন ছেলের বাড়ির পক্ষ থেকে মেয়েটিকে নানারকম অসঙ্গতিপূর্ণ কথাবার্তা বললেও মেয়েটি তার দাবিতে অনড়।
 
অনশনরত মেয়েটি (আকিতা)কাঁদো কাঁদো কন্ঠে বলেন,আমি রুহুল আমিন চেয়ারম্যান বাজারের ৮নং ওয়ার্ডের মোঃ রফিক চৌধুরীর ছেলে মোঃ মাহফুজ(১৮) এর সাথে আমার ২ বছর প্রেমের সম্পর্ক চলছে। সে আমাকে বিয়ে করবে বলে নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছিল। বর্তমানে সে আমাকে কোনো কথা না বলে অন্যত্র বিয়ে করার চেষ্টা করতেছে তাই আমি আমার ভালোবাসা রক্ষার্থে বিয়ের দাবীতে অনশন করি। এর আগে সে আমাকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতিতে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। আমি তাকে নানাভাবে বিয়ে করার পরামর্শ দিলে সে নানাভাবে আমার সাথে ছলচাতুরি করতে থাকে। পরে আমি জানতে পারি তার পরিবার তাকে অন্যত্র বিয়ে দেওয়ার জন্য মেয়ে দেখছে। এ সব শোনার পর আমি নিজে আজ বুধবার সকালে অনশনের পথ বেছেনেই।
 
এখন আমি বিয়ের দাবিতে এই বাড়িতে আজ বুধবার দিনে অবস্থান করছি এবং আকিতা বলেন, মাহফুজ যদি আমাকে বিয়ে না করে তাহলে আমি আত্মাহত্যা করবো।
 
মাহফুজের বাবা মোঃ রফিক চৌধুরী বলেন, মেয়েটির সাথে আমার ছেলের সর্ম্পকের কথা আমরা জানি না। আমার ছেলে কোনদিন আমাদের কাছে বিয়ের কথা বলেনি। আমি মেয়েটিকে চিনি। সে আমাদের মেয়ের ননদ হয়। আমার ছেলে এ বিয়েতে রাজি নয়। সে অন্যত্র বিয়ে করার জন্য আমাদের পরিবারে প্রস্তাব দিয়েছে। তাই আমরা তার বিয়ের জন্য অন্যত্র বিয়ে দেওয়ার চেষ্টায় ছিলাম এরই মধ্যে মেয়েটি আমাদের বাড়িতে এসে ঝামেলায় ফেলে দিয়েছে। আমার ছেলে বাড়িতে নাই । সে সকালে কোথায় চলে গিয়েছে জানিনা তবে আসলে তার সাথে বসে মীমাংসা হবে।
 
আকিতার মা মহর বানু বলেন, আমি বিষয়ে জানিনা তবে ছেলে মোঃ মাহফুজ আমাদের ওখানে তাদের আত্মীয় বাড়িতে গিয়ে আমার মেয়ের সাথে সম্পর্ক করে এবং আমার মেয়ের সাথে নানা রকম ছলচাতুরি করে। এখন নাকি মাহফুজ বিয়ে করতাছে তাই এ কথা শুনে আমার মেয়ে এই পথ বেছে নেয়। তারপর আমার মেয়ে ৪ দিন যাবৎ খাওয়া দাওয়া করে না সে অনেক কষ্টে আছে । বর্তমানে মাহফুজের বিয়ের কথা শুনে কষ্ট সহ্য না করতে পেরে বিয়ের দাবি নিয়ে আমার মেয়ে ওই ছেলের বাড়িতে অবস্থান করছে।
 
চর মানিকা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার পদপ্রার্থী ও ছেলের চাচা কামাল চৌধুরী সংবাদ কর্মীদেরকে বলেন, উভয়পক্ষ থেকে এখনো কোন সালিশ হয়নি। এ বিষয়ে পরিবারের সাথে বসে আমি সমাধানের চেষ্টা চালিয়ে যাবো।