ঠাকুরগাঁওয়ে কিশোর গ্যাং সংঘর্ষে স্কুল ছাত্রনিহত

ঠাকুরগাঁওয়ে কিশোর গ্যাং সংঘর্ষে স্কুল ছাত্রনিহত
ছবিঃ সংগৃহীত

স্টাফ রিপোর্টার, ঠাকুরগাঁও।।ঠাকুরগাঁওয়ে দুই কিশোর গ্যাং সংঘর্ষে মেহেদি(১৬)নামের এক স্কুল ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় আরমান(১৫)  নামে আরও একজন আহত হয়েছে। নিহত মেহেদি ঠাকুরগাঁও বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র।

বুধবার(২২ ডিসেম্বর) রাতে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার দুরামারির শামিমের হোটেলের পাশে কিশোরদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ঘটনাটি ঘটেছে।

নিহত মেহেদি ঠাকুরগাঁও রুহিয়া সেনেহারি গ্রামের আ.মালেকের ছেলে। আহত আরমান শহরের পরিষদ পাড়ার জুয়েল ইসলামের ছেলে। মেহেদি পরিষদ পাড়ায় মামা আমজাদ হোসেনের বাসায় থাকতো। 

প্রত্যক্ষদর্শী ছাদেকুল জানান, আনুমানিক রাত আটার দিকে কিশোর বয়সী কিছু ছেলেদের চিল্লাহাল্লা শুনতে পেয়ে বাজারের লোকজন এগিয়ে যায়। গিয়ে দুজনকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

নিহত মেহেদির মামা আমজাদ হোসেন বলেন,স্কুলে যাওয়ার সুবিধার্থে মেহেদি আমাদের বাসায় থেকে পড়াশোনা করতো। সন্ধায় কেউ একজন ডেকে নিয়ে যায় মেহেদীকে। কিছুক্ষণ পরে মোবাইলে একজন হামলার বিষয়টি জানায়।

আহত আরমানের পিতা জুয়েল ইসলাম বলেন, আমি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ছিলাম। হঠাৎ ছেলে আমাকে ফোন দিয়ে আহত হবার কথা জানায়। ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় পেয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় হাসপাতালে নিয়ে আসি।

ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ছাবরিনা জানান, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারনে হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই মেহেদির মৃত্যু হয়েছে। আরমানের অবস্থা খুব বেশি গুরুতর না হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। 

এই বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা আতিকুল ইসলাম আতিক জানান, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি তদন্তধীন রয়েছে। সিআইডি ও পিবিআই রহস্য বের করার জন্য কাজ করছে।