৯বছর পর সিলেটে বিএনপির সমাবেশ

৯বছর পর সিলেটে বিএনপির সমাবেশ
ছবি: সংগৃহীত

সিলেট প্রতিনিধি।। সিলেটে প্রায় ৯ বছর আগে এরকম বড় সমাবেশ হয়েছিল। ২০১৩ সালের ৫ অক্টোবর নির্বাচনের আগে সেখানে মহাসমাবেশ করে দলটি। সেই সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

নেতাকর্মীদের শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত সমাবেশস্থল। গণসমাবেশ গতকাল শুক্রবারই পুরো মাদ্রাসা মাঠ লোকে লোকারণ্য হয়ে পড়ে। মাঠেই পুরো রাত কাটান নেতা-কর্মীরা। আজ শনিবার বেলা বাড়ার সাথে সাথে সমাবেশ স্থলে নেতা-কর্মীদেরও ভিড় বাড়তে শুরু করেছে ।

সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী বলেন, আজ সিলেটে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় সমাবেশ হবে। এটি সিলেটের জন্য একটি ঐতিহাসিক সমাবেশ হবে। আগের সব সমাবেশ থেকে আজকের সমাবেশে সবচেয়ে বেশি মানুষ হবে। গণসমাবেশে চার লাখ লোক জমায়েত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন কাইয়ুম।

সমাবেশকে ঘিরে সিলেটজুড়ে বিএনপি নেতা-কর্মীদের মধ্যে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। দীর্ঘদিন পর মাঠে বড় সমাবেশ করতে পেরে চাঙ্গা দলটির নেতা-কর্মীরা। সমাবেশের জন্য ব্যানার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে পুরো নগরী। গণসমাবেশ সফলে মাসখানেক ধরে প্রচার কার্যক্রম চালাচ্ছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা।

পুরো বিভাগজুড়ে প্রচার চালিয়েছেন স্থানীয় নেতারা। আর কেন্দ্রীয় নেতারা সিলেটে থেকে সমাবেশের প্রস্তুতি কার্যক্রম সমন্বয় করেছেন। গত বৃহস্পতিবার থেকেই সমাবেশস্থলে আসতে শুরু করেন নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। সিলেট বিভাগের বিভিন্ন এলাকা ছাড়াও বিভাগের বাইরে থেকেও অনেকে এসেছেন সমাবেশে। সময় সময় সমাবেশস্থলে বাড়ছে জমায়েত।

এদিকে সিলেটের ঐতিহাসিক সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠের সমাবেশস্থল ও নগরীর রাস্তাঘাট সকাল থেকেই স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করে তুলেছেন বিএনপি’র নেতা-কর্মীরা। আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরেই এই মাঠে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

শনিবার (১৯ নভেম্বর) দুপুরে সরকারি আলিয়া মাদরাসা মাঠ গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায়।শনিবার ভোর থেকে সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে সমাবেশস্থলে নেতা-কর্মীদের ভিড় বাড়তে শুরু করেছে।
চলছে স্হানীয় নেতৃবৃন্দের বক্তব্য।  গতকাল সিলেট বিভাগের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে আসা মানুষ, যারা মাঠের বাইরে বিভিন্ন কমিউনিটি সেন্টার বা স্বজনদের বাড়িতে রাত কাটিয়েছেন, তারা ভোর থেকেই মাঠে আসতে শুরু করেছেন।

গণসমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেবেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। প্রধান বক্তা স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, বিশেষ অতিথি আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও সেলিমা রহমান।