ঠাকুরগাঁওয়ে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, স্বামী আটক

ঠাকুরগাঁওয়ে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, স্বামী আটক
ছবি: সংগৃহীত

জীবন হক, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি।। ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে এক গৃহবধুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে উপজেলার চন্দরিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

গৃহবধূ ২০ বছরের রহিমা খাতুনের মৃত্যুতে রহস্য থাকায় তার স্বামী শাহিন হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। তাকে এলাকার গুচ্ছ গ্রাম থেকে আটক করা হয়। 

এসব তথ্য নিশ্চিৎ করেছেন পীরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন। 

নিহতের পরিবার ও স্বজনদের বরাতে ওসি জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরিবার ওস্বজনদের মৌখিক অভিযোগ রয়েছে নিহত গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার স্বামী। আমরা ঘটনা তদন্ত করে দেখছি। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামীকে আটক করা হয়েছে। 

নিহতের বড় ভাই দুরুল হুদা  জানান, পারিবারিক কলহের জেরে বুধবার রাতে শাহিন  রহিমাকে পিটিয়ে হত্যা করে মরদেহ গুচ্ছগ্রামের নির্মানাধীন একটি ঘড়ের তীরে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে। আমরা বিচার চাই।।

 নিহত রহিমার মা মনোয়ারা বেগম জানান আমি আইনের আশ্রয় নেব আমার মেয়েকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় রক্তাক্ত আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। রহিমাকে টাকার জন্য প্রায়ই মারধর করতো তার স্বামী শাহিন। গত রাতে রহিমাকে পিটিয়ে হত্যা করে আতহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে ঘাতকরা।
 
পীরগঞ্জ থানার ওসি জাহাঙ্গীন আলম জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্বামীকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের মায়ের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।