ঠাকুরগাঁওয়ে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে মা-ছেলেকে পেটানোর অভিযোগ

ঠাকুরগাঁওয়ে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে মা-ছেলেকে পেটানোর অভিযোগ
ছবিঃ সংগৃহীত

বিকাশ রায় চৌধুরী,ঠাকুরগাঁও।। ০৪ মে, মংগলবার।। ঠাকুরগাঁও পৌর শহরের গোয়ালপাড়ায় মা-ছেলেকে মারপিটের অভিযোগ উঠেছে রবিউল ইসলাম নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। শিক্ষক রবিউল একই এলাকার বাসিন্দা ইমরান (২৪) কে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে হাতের এলবো জয়েন্ট ভেংগে দিয়েছেন। একই সাথে তার মা গুলবানু (৪৯) কে মারপিট করেছেন তিনি। সোমবার(০৩ মে) সন্ধায় এ ঘটনা ঘটে। রবিউল ইসলাম সেনুয়াপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। আহত ইমরান গোয়ালপাড়া এলাকার মৃত নয়নের ছেলে। 

ইমরানের খালা ২ নং ওয়ার্ড যুব মহিলা লীগের সভাপতি রত্না আক্তার জানান, সন্ধার পর ইমরানের পোষা খরগোশকে রবিউলের কুকুর মুখে কামড়ে ধরে নিয়ে যাচ্ছিল। এমন সময়
সেখানকার বাচ্চাদের চিৎকারে ইমরান ইট দিয়ে ঢিল ছুড়লে কুকুরটি খরগোশটিকে ছেড়ে দেয়। পরে ইমরান খরগোশের বাচ্চাটিকে কোলে নিয়ে কাঁন্নাজড়িত কন্ঠে রবিউলকে গালাগালি করে। গালি শুনতে পেয়ে শিক্ষক রবিউল বাড়ি থেকে বের হয়ে ইমরানের সাথে কথা কাটা কাটি করে। পরে হাতাহাতির এক পর্যায়ে রবিউল একটি লোহার রড দিয়ে ইমরানকে পেটানো শুরু করে। এ সময় ইমরানের বাম হাতের এলবো জয়েন্ট ভেংগে গিয়ে বলটি পরে যায়। ইমরানের মা ছেলেকে বাঁচাতে গেলে রবিউল তার উপরে চড়াও হয়ে মারপিট করে আহত করেন। 
পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। আহত ইমরানের অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ইমরানকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। 
এ বিষয়ে ইমরানের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়। 
ঘটনাটি পুলিশকে জানালে পুলিশ তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে রবিউলকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে পুলিশ  সদর হাসপাতালে গিয়ে ইমরান ও তার মায়ের সাথে কথা বলে তথ্য সংগ্রহ করেন। 
এ বিষয়ে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ তানভীরুল ইসলাম জানান, ঘটনা জানার পরপরই পুলিশ গিয়ে রবিউল ইসলামকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। লিখিত অভিযোগ পেলে পরবর্তীতে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে জানান তিনি।