রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এপিবিএন পুলিশের সাথে ঘন্টাব্যাপী গোলাগুলি : এসল্ট রাইফেল ও গুলি উদ্ধার

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এপিবিএন পুলিশের সাথে ঘন্টাব্যাপী গোলাগুলি : এসল্ট রাইফেল ও গুলি উদ্ধার
ছবি: সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার, ১৭ জুন।। কক্সবাজারের উখিয়া ১৮নং রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্পে  ৮ এপিবিএন পুলিশের সাথে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের মধ্যে ঘন্টাব্যাপি গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অস্ত্র উদ্ধার অভিযান চালাতে গিয়ে বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) রাত ১২ টার সময় এঘটনা ঘটেছে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে একটি আমেরিকান অটোমেটিক রাইফেল ও ৪৯১ রাউন্ড তাজাগুলি উদ্ধার করা হয়। এর আগে বৃহস্পতিবার বিকালে টেকনাফে নুরালী পাহাড় হতে ৪টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেছেন ১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)।

বৃহস্পতিবার দিনগত রাত ১ টার দিকে এ ঘটনা নিশ্চিত করেন ৮ এপিবিএন এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মোহাম্মদ কামরান হোসেন। 
তিনি জানিয়েছেন, গোপন খবরের ভিত্তিতে এপিবিএন পুলিশের একটি টীম ১৮ নম্বর রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্পে অস্ত্র উদ্ধার অভিযানে যান। এসময় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। জবাবে এপিবিএন পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। 


এতে দু'পক্ষের মধ্যে ঘন্টাব্যাপী গোলাগুলি ঘটনা ঘটেছে। এক পর্যায়ে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের আস্তানা থেকে একটি অটোমেটিক এসল্ট রাইফেল (সিওএলটি-ইউএসএ) ও ৪৯১ রাউন্ড তাজাগুলি উদ্ধার করা হয়। তবে এঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি বলে জানান তিনি। 
উল্লেখ,কক্সবাজারের উখিয়ার ১১টি রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছে ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) সদস্যরা।
এদিকে, বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) বিকেল সাড়ে ৩ টার সময় কক্সবাজারের টেকনাফে নুরালী পাহাড় হতে ৪টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেছেন আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)।
টেকনাফ উপজেলার নয়াপাড়া রেজিস্টার্ড ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড় হতে এসব অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ১৬ এপিবিএন এর অধিনায়ক পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলাম।
তিনি জানান, নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন নুরালী পাড়া পাহাড়ে ১৬ এপিবিএন এর ৮০ জনের একটি কমান্ডো টিম ড্রোন অভিযান চালায়। এসময় পাহাড়ের গুহা থেকে ৪টি দেশীয় তৈরী অস্ত্র ও চার রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত অস্ত্র গুলো রোহিঙ্গা ডাকাতেরা লুকিয়ে রেখেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আইনী প্রক্রিয়া শেষে উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও গুলি স্থানীয় থানায় হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন এই এপিবিএন কর্মকর্তা।