শ্বশুরের সুপারি বাগানের সঙ্গে পুত্রবধুর শত্রুতা ।। শতাধিক সুপারি গাছ কেটে সাবাড়

শ্বশুরের সুপারি বাগানের সঙ্গে পুত্রবধুর শত্রুতা ।। শতাধিক সুপারি গাছ কেটে সাবাড়
ছবিঃ সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার, ৫ জুন।।শ্বশুরের বাগানের শতাধিক সুপারি গাছ কেটে নষ্ট করে দিয়েছে পুত্রবধু ও তার পোষ্য দুর্বৃত্তরা। শনিবার (৫ মে) সকাল ৭ টার দিকে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের উত্তর শিলখালী বাইলারছড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় তাঁদের প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।এঘটনায় জড়িত আপন পুত্রবধুর বিচার চেয়ে স্থানীয় পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে লিখিত অভিযোগও দায়ের করেছেন ৮০ বছর বয়সি শ্বশুর মো.শফি।

জানা গেছে, টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের উত্তর শিলখালী বাইলারছড়া গ্রামে মৃত শরাফত আলীর ছেলে মোঃ শফি'র (৮০) বসতবাড়ীর আশপাশে সুপারি বাগান গড়ে তুলেন। শনিবার সকালে এই বাগানের শতাধিক সুপারি গাছ নির্দয় ভাবে কেটে দিয়েছে তার পুত্রবধু (প্রবাসী রহমত উল্লাহর স্ত্রী) শারমিন আক্তার (৩০)। এসময় সাথে ছিলেন, তার পোষ্য
হোছেন আহমদের ছেলে ডালিম (২৮), ফরিদের ছেলে মোঃ লালু (৩০) ও অজ্ঞাতনামা বেশ কিছু রোহিঙ্গা।
স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যা আনোয়ারা বেগম জানান, ইউনিয়নের ৩ নাম্বার ওয়ার্ডে পুত্রবধু কতৃক শ্বশুরের সুপারি বাগান কেটে ফেলার ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। এই ঘটনার সঠিক বিচার হওয়া দরকার বলে মনে করেন তিনি।
মো. শফির (৮০) ছেলে আবুল হাশেম বলেন, শনিবার সকাল ৭ টার দিকে হঠাৎ শামিনা আক্তার, লালু, ডালিমসহ অজ্ঞাত নামা কিছু লোক আমার বসতবাড়িতে ঢুকে লম্বা দা, কিরিচ নিয়ে সুপারী গাছ কাটতে থাকে। সাথে সাথে আমি স্থানীয় মেম্বারকে মোবাইল ফোনে ঘটনাটি জানানোর পর তিনি ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগেই আমার বাগানের শতাধিক সুপারি ও নারিকেল গাছে কেটে দিয়েছে। 
তার আরেক ভাই ব্যাংকার আবুল বশর জানান, আমার বাগানের সুপারি গাছ কাটলে আমার বৃদ্ধ বাবা বাঁধা দিলে শারমিন আক্তার আমার বাবাকে লম্বা দা দিয়ে দিয়ে কুপাতে উদ্যত হন। ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।
বয়োবৃদ্ধ মো. শফি জানান, কেটে ফেলা প্রত্যেকটি সুপারি গাছে বয়স ২০-২৫ বছর।আমার বসত বাড়ির সুপারি বাগানের গাছ গুলো কাটার সময় আমি বাঁধা দিলে আমার ছেলের বউ আমাকে লম্বা দা নিয়ে কুপাতে আসে। আমার ছেলে রহমত উল্লাহ সৌদি আরবে থাকেন। বাড়ি নির্মাণ করতে আমার কাছে জমি দাবী করে পুত্রবধু শারমিন । আমি অপরাপর ছেলেদের সাথে বসে জমি ভাগ করব এবং সেটা একটু সময় হবে । কিন্তু এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে শারমিন সন্ত্রাসীদের নিয়ে আমার সুপারি বাগানের গাছ গুলো কেটে ফেলেছে। আমি স্হানীয় পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি। এঘটনায় সুষ্ঠ বিচারের দাবী জানান তিনি।
এব্যাপারে বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) নুর মোহাম্মদ জানান, সুপারি বাগান কাটার বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।