সাঘাটায় অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা খুন

সাঘাটার জুমারবাড়ি সিনেমা হলের মালিক বুলু খুন !

সাঘাটায় অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা খুন
ছবিঃ সংগৃহীত

আবু তাহের। স্টাফ রিপোর্টার।।  গাইবান্ধা, ১১ এপ্রিল, রবিবার।। সাঘাটার উপজেলার জুমারবাড়ি ইউনিয়নের মামুদপুর গ্রামের বাসিন্দা মৃত্যু কায়েম উল্লার রোমা সিনেমা হলের মালিক অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য বজলুর রশিদ বুলু খুন হয়েছে  বলে তার পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ তুলেছে। 

১০ এপ্রিল দিবাগত রাতে যে কোন সময় সে খুন হয়েছে । রবিবার ভোরে তার রক্তাক্ত দেহ কে বা কাহারা সিনেমা হলের সামনে ফেলে রেখে চলে গেছে। তার মৃত্যুতে এলাকার মানুষের মাঝে শোকের ছায়া নেমে পড়েছে। বুলুর শরীরের মুখ মন্ডলের দাড়িড় ভেতরে একাধিক কাটা চিহ্ন দেখা গেছে।
 

 ১১ এপ্রিল সকাল ৯টায় সাঘাটা থানা পুলিশ বুলুর মরদেহ সুরুতহাল রিপোর্ট শেষে ময়না তদন্তের জন্য গাইবান্ধা মর্গে প্রেরণ করেছে। 

এঘটনায় সাঘাটা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। যার নং ৪, তারিখ ১১ এপ্রিল ২০২১ ইং। বুলুর পুত্র আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাহেরুল ইসলাম বাদী হয়ে অস্বাভাবিক মৃত্যু মামলা দায়ের করেছে বলে থানা সুত্রে জানা গেছে।
 
বুলুর স্ত্রী শিপন  বেগম জানান, শনিবার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিওে আসেনি। ভোওে তার মরদেহ তাদেও সিনেমা হলের সামনে থেকে পাওয়া গেছে।
 মৃত বুলুর কন্যা বিভা আক্তার জানান, আমার বাবাকে খুন করা হয়েছে। আমার বাবা এবার ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন করার কথা। ভোটের মাঠ ভালো ছিলো। এছাড়াও বলেন আগে থেকে আমাদের হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিলো।


বুলুর শ^াশুড়ি মাজেদা জানালেন, জামাই মাগরিব পরে বাড়ির বাহিওে চলে গিয়েছিলো। সাড়ে এগারোটা পর্যন্ত আমার ফোন করলেও তাকে পাওয়া যায়নি। ভোওে তার  রক্তাক্ত জখম দেহ তারই সিনেমা হলের সামনে পাওয়া গেছে।

প্রতিবেশিরা জানালেন, বুলু খুব ভালো লোক ছিলো। এব্যাপারে সাঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জের  সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। পরে মামলার তদন্ত

কর্মকর্তা এসআই মোস্তাফার সাথে কথা হলে তিনি জানান, নিহতের পুত্র থানায় এসে এমুহুর্তে একটি ইউডি মামলা করেছে। সে মোতাবেক লাশটি গাইবান্ধা মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্ট আসার পর জানা যাবে কিভাবে তার মৃত্যু হয়েছে। তিনি আরো বলেন  মৃত্যু রহস্য নিয়ে তদন্ত অব্যাহত রয়েছে।