সিলেটে চাঞ্চল্যকর তামান্না হত্যা, ঘাতক স্বামী ঢাকা থেকে আটক

সিলেটে চাঞ্চল্যকর তামান্না হত্যা, ঘাতক স্বামী ঢাকা থেকে আটক
ছবি: সংগৃহীত

সিলেট অফিস।।  ২৭ এপ্রিল, মংগলবার।। সিলেট নগরীর কাজীটুলায় চাঞ্চল্যকর গৃহবধূ সৈয়দা তামান্না বেগমকে হত্যা হামলার প্রধান আসামী ঘাতক স্বামী মো. আল মামুন কে ঢাকা থেকে আটক করেছে পুলিশ।  
চাঞ্চল্যকর এ হত্যার ৫মাস পর উন্নত প্রযুক্তির সহযোগীতায় রোববার রাতে তাকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। আল মামুনের মুল বাড়ি বরিশালের বাবুগঞ্জ থানার হোগলারচরে।
সোমবার (২৬ এপ্রিল) দুপুরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোতোয়ালি থানার এসআই আব্দুল মান্নান গ্রেফতারকৃ আল মামুনকে সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিনস্ট্রেট ১ম আদালতের বিচারক সাইফুর রহমানের আদালতে হাজির করে ৭দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে আদালত ৫দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
সোমবার (২৬ এপ্রিল) থেকে তাকে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে জানিয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আব্দুল মান্নান জানান,আদালতে ৭দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে আদালত ৫দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ঘটনার নেপথ্যে আর কারা রয়েছে এবং কিজন্য হত্যা করা হয়েছে সেসব তথ্য জানতে চাইবে পুলিশ। একাধিকবার  বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়েও গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি মামুনকে। সে বরিশাল অবস্থান করছে জানতে পেরে তাকে গ্রেফতার করতে অভিযান চালালেও তাকে পাওয়া যায়নি। সে স্থান পরিবর্তন করে ঢাকায় চলে যায়। পরে পূনরায় প্রযুক্তির সহযোগীতায় তাকে ঢাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
বিষয়টি নিশ্চিত করেন কোতোয়ালি থানার ওসি এসএম আবু ফরহাদ। তিনি বলেন, প্রযুক্তির সহায়তায় পুলিশ মামুনকে গ্রেফতার করেছে। নিহত তামান্নার সাথে বিয়ের আগেও আরেকটি বিয়ে করেছিলেন মামুন। মামুনের বিরুদ্ধে আগের স্ত্রীর দায়ের করা মামলাও রয়েছে। আগের স্ত্রীর ঘরে একটি সন্তানও রয়েছে তার।
গত বছরের ২৩ নভেম্বর দুপুরে নগরীর কাজীটুলার অন্তরঙ্গ ৪ নং বাসার তালাবদ্ধ কক্ষ থেকে গৃহবধূ তামান্নার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় মরদেহের গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় পাওয়া যায়। এ ঘটনার পর থেকে স্বামী মামুন পালিয়ে যায়। পরে ওই রাতে নিহতের ভাই সৈয়দ আনোয়ার হোসেন রাজা বাদী হয়ে স্বামী মামুনসহ ৬জনকে আসামী কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় মামুন ছাড়াও অন্য আসামিরা হলেন, এমরান, পারভীন, মাহবুব সরকার, বিলকিস ও শাহনাজ। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। 
এদিকে একই বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর পারিবারিকভাবে ব্যবসায়ী আল মামুনের সাথে তামান্নার বিয়ে হয়। তিনি নগরীর জিন্দাবাজারস্থ আল-মারজান শপিং সেন্টারের ঐশি ফেব্রিক্স নামক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন। আর তামান্না বেগম দক্ষিণ সুরমা উপজেলার লালাবাজার ইউনিয়নের ফুলদি গ্রামের বাসিন্দা। তবে মা-বাবা ও পরিবারের সদস্যরা গোলাপগঞ্জ পৌর এলাকার এমসি একাডেমি সংলগ্ন একটি বাসায় ভাড়ায় বসবাস করে আসছিলেন। তামান্নার সাথে বিয়ের আগেও আরেকটি বিয়ে করেছিলেন মামুন। মামুনের বিরুদ্ধে আগের স্ত্রীর দায়ের করা মামলাও রয়েছে। আগের স্ত্রীর ঘরে একটি সন্তানও রয়েছে তার।