৪ টি চোরাই মোটরসাইকেলসহ সংঘবদ্ধ চক্রের ২ সদস্য গ্রেফতার

৪ টি চোরাই মোটরসাইকেলসহ সংঘবদ্ধ চক্রের ২ সদস্য গ্রেফতার
ছবি: সংগৃহীত

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি।।ডাকাতি মামলার এজাহার ভুক্ত পলাতক আসামি এবং মোটরসাইকেল চোর চক্রের মূল হোতা আলামিন সহ ০২ জন সঙ্ঘবদ্ধ আন্তঃজেলা মোটরসাইকেল চোর চক্রের সক্রিয় সদস্যকে র‌্যাব-৪ এর  কোম্পানি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আরিফ হোসেন এর নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে মানিকগঞ্জ সদর থানা এলাকা হতে গ্রেফতার ও ০৪ টি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়। এ সময়  আলামিন ওরফে অভি খান(৩০) এবং হৃদয় আহমেদ(২৬) নামের দু্ই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৪। 

গ্রেফতারের বিষয়ে লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আরিফ হোসেন জানান,  গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ২০ সেপ্টেম্বর ১২:৩০ মিনিটে মানিকগঞ্জ জেলার মানিকগঞ্জ সদর থানাধীন পরিবেশ অধিদপ্তর অফিসের সামনে থেকে একটি মোটরসাইকেল সহ সন্দেহভাজন এক ব্যক্তিকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করার সময়  উক্ত ব্যক্তির অসংলগ্ন কথাবার্তায়  তাদের সন্দেহ হয় এবং তাকে ব্যাপকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সে নিজের নাম আলামিন এবং বাড়ির ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আশুগঞ্জ থানায় বলে জানায়। সে আরও জানায় যে, সে আন্ত জেলা সঙ্ঘবদ্ধ মোটরসাইকেল চোর চক্রের  সদস্য। সে সহ তার অন্যান্য সহযোগীরা মানিকগঞ্জ জেলা সহ দেশের বিভিন্ন স্থান হতে কৌশলে মোটরসাইকেল চুরি করে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রয় করে আসছে।

গ্রেফতারকৃত আলামিন জানায়  মোটরসাইকেলটি সে পরিবেশ অধিদপ্তরের সামনে হতে চুরি করে পালানোর চেষ্টা করছিল। অতঃপর আলামিনের দেয়া তথ্যমতে  র‌্যাব মোটরসাইকেলটি হেফাজতে  নিয়ে চোর চক্রের চুরি করা আরও তিনটি মোটরসাইকেল ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আশুগঞ্জ থানাধীন যাত্রাপুর এলাকা ২১ সেপ্টেম্বর ভোর  রাত ১২:৩০ টায় উক্ত চক্রের অন্যতম সদস্য ও ডিলার হৃদয় এ বাড়িতে অভিযান চালিয়ে হৃদয়কে আটক করে  এবং  তিনটি চোরাই মোটরসাইকেল র‌্যাব উদ্ধার করে। গ্রেফতারের সময় তাদের কাছ থেকে ৪ টি মটরসাইকেল ছাড়াও ০২টি মোবাইল ফোন, গাড়ির লক খোলার জন্য বিভিন্ন রকমের ৪ টি  চাবি ও গাড়ির তার কাটার কাজে ব্যবহৃত ০১ টি ব্লেড উদ্ধার করা হয়। 

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা  আরো জানান,  প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আলামিন ও হৃদয় পরস্পর যোগসাজশে দীর্ঘদিন ধরে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মোটরসাইকেল চুরি করে বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করার কথা স্বীকার করে। এছাড়া গ্রেফতারকৃত আসামি আলামিন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আশুগঞ্জ থানার ডাকাতি মামলার এজাহারভুক্ত পলাতক আসামি বলে জানা যায়। সে মোটরসাইকেল চুরির পাশাপাশি সঙ্ঘবদ্ধ ডাকাত দলের অন্যতম সদস্য বলে স্বীকার করে। সারাদেশে এই চক্রের ২৫/৩০ জন সদস্য সক্রিয় আছে বলে জানা যায়।

 উপরোক্ত বিষয়ে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। অদূর ভবিষ্যতে এরূপ সংঘবদ্ধ চোর চক্রের বিরুদ্ধে র‌্যাব-৪ এর জোরালো অভিযান অব্যাহত থাকবে।